অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আফগানিস্তানে মহিলারা ক্রিকেট খেলতে পারবেঃ আফগান কর্মকর্তা


আফগানিস্তানের কাবুলে কার্তি সখী মন্দিরের বাইরে মহিলারা কথা বলছেন৷২৩ অক্টোবর ২০২১। (ছবি-এপি/ব্র্যাম জ্যান্সেন)

তালিবান নেতৃত্বাধীন আফগানিস্তানের একজন শীর্ষ কর্মকর্তা মহিলা ক্রীড়াবিদদের আশ্বস্ত করেছেন যে তারা সংঘর্ষ-বিধ্বস্ত দেশে ক্রিকেট খেলা চালিয়ে যেতে পারবেন।

গত আগস্টে তালিবান দক্ষিণ এশীয় দেশটির নিয়ন্ত্রণ নেবার পর আন্তর্জাতিকভাবে বিচ্ছিন্ন হওয়ার ঝুঁকির কারণে এই আশ্বাস দেয়া হয়। ইসলামপন্থী গোষ্ঠীটি মহিলাদের এই খেলাটি খেলতে দেবে না বলে আশঙ্কা করা হয়েছিল।

ক্রিকেট বোর্ড, এসিবির ভারপ্রাপ্ত প্রধান মিরওয়াইস আশরাফ এক অভ্যন্তরীণ সভায় বলেন, "আমাদের মেয়েরা স্বাভাবিক নিয়মে ক্রিকেট খেলবে এবং আমরা তাদের মৌলিক চাহিদা ও তাদের প্রয়োজনীয় সমস্ত সুযোগ-সুবিধা দেয়ার চেষ্টা করছি।"

মঙ্গলবার জারি করা এসিবি বিবৃতি অনুসারে, আশরাফ জোর দিয়ে বলেন যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) সদস্যদের জন্য মহিলা ক্রিকেটের বিকাশ একটি প্রধান শর্ত এবং তারা এটি পূরণ করতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

গত সপ্তাহে, আইসিসি ঘোষণা করেছে যে তারা তালিবান সরকারের অধীনে আফগান ক্রিকেট প্রোগ্রামের ভবিষ্যত পর্যালোচনা করার জন্য একটি ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠন করছে।

ওয়ার্কিং গ্রুপ গঠনের ঘোষণা দেয়ার সময় আইসিসি চেয়ারম্যান গ্রেগ বার্কলে এক বিবৃতিতে বলেন, "আইসিসি বোর্ড পুরুষ ও মহিলা উভয় ক্রিকেটের উন্নতির জন্য আফগানিস্তান ক্রিকেটের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।"

বার্কলে জোর দিয়ে বলেন, "আমরা বিশ্বাস করি নতুন তালিবান সরকারের সঙ্গে সম্পর্কের মাধ্যমে আমাদের সদস্যদের অর্জন প্রচেষ্টায় সমর্থন করার সবচেয়ে কার্যকর উপায় এটি।"

তালিবান বিশ্বকে আশ্বস্ত করেছে যে তারা ১৯৯৬ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত তাদের আগের সরকারের কঠোর ইসলামিক শাসনের পুনঃপ্রবর্তন করবে না।সে সময় কোনো নিকট পুরুষ আত্মীয় ছাড়া মহিলাদের বাইরে যাওয়া নিষেধ ছিল এবং অধিকাংশ মেয়েদের শিক্ষা গ্রহণ নিষেধ করা হয়েছিল।

XS
SM
MD
LG