অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

৬.৩ ওভারেই জয়ঃ সেমিতে যাওয়ার লড়াইয়ে টিকে রইল ভারত


সংযুক্ত আরব আমিরাতে ভারত এবং স্কটল্যান্ডের মধ্যে ক্রিকেট টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচে ভারত জয়ের পর ভারতের অধিনায়ক বিরাট কোহলি স্কটল্যান্ডের খেলোয়াড়দের শুভেচ্ছা জানাচ্ছেন। ৫ নভেম্বর ২০২১।(এপি ফটো/আয়াজ রাহি)

ভারতীয় দলের দুই ওপেনার, রোহিত শর্মা ও লোকেশ রাহুলের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে স্কটল্যান্ডকে দ্রুত উড়িয়ে দিয়ে সেমিফাইনালে ওঠার লড়াইয়ে টিকে রইলো কোহলিবাহিনী।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভের ম্যাচে শুক্রবার দুবাই আন্তর্জাতিক স্টেডিয়ামে স্কটল্যান্ডকে ৮ উইকেটের বিশাল ব্যবধানে হারিয়েছে ভারত। জয় তুলে নিতে মাত্র ৬.৩ ওভার লেগেছে তাদের।

সেমিতে ওঠার লড়াইয়ে নিউজিল্যান্ডকে নেট রান রেটে পেছনে ফেলতে ৮.৫ ওভারে এবং আফগানিস্তানকে পেছনে ফেলতে ৭.১ ওভারে জয় তুলে নিতে হতো ভারতের। সমীকরণটা দারুণভাবে মিলিয়ে দিয়েছেন দুই ভারতীয় ওপেনার।

ভারতীয় বোলারদের তোপের মুখে শুরুতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৮৫ রানেই গুটিয়ে যায় কাইল কোয়েটজারের দল। জবাবে ২ উইকেট হারিয়ে ৮১ বল হাতে রেখেই জয় তুলে নেয় ভারত। এই জয়ে ভারতীয় দল গ্রুপের পয়েন্ট তালিকায় তিনে উঠে এলো। সেই সঙ্গে তাদের রান রেট (১.৬১৯) এখন দুইয়ে থাকা নিউজিল্যান্ড (১.২৭৭) এবং চারে থাকা আফগানিস্তানের (১.৪৮১) চেয়ে অনেকটা এগিয়ে গেল। এমনকি শীর্ষে থাকা পাকিস্তানও (১.০৬৫) আছে ভারতের পেছনে।

ভারতের সেমি-ভাগ্য এখন নির্ভর করছে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আফগানিস্তানের জয়ের ওপর। সেই সঙ্গে এই পর্বে নিজেদের শেষ ম্যাচেও জিততে হবে কোহলিদের। নিউজিল্যান্ডের ভাগ্যও এখন আফগানিস্তানের বিপক্ষে ওই ম্যাচের ওপর নির্ভর করছে। আফগানদের হারাতে পারলেই কিউইদের সেমি নিশ্চিত। সেক্ষেত্রে নেট রান রেটের হিসাব কোনো কাজেই আসবে না।

শুরু থেকেই ব্যাট হাতে ঝড় তোলেন রোহিত ও রাহুল। মাত্র ১৬ বলে ৫ চার ও ১ ছক্কায় ৩০ রান করে আউট হন রোহিত। ততক্ষণে ভারতের সংগ্রহ ৭০ ছুঁয়ে ফেলেছে। এরপর মাত্র ১৯ বলে ৬ চার ও ৩ ছক্কায় ৫০ রান করে রাহুল বিদায় নেওয়ার সময় জয়ের একদম কাছে চলে যায় ভারত। ষষ্ঠ ওভারের তৃতীয় বলে বিশাল ছক্কা হাঁকিয়ে ভারতের জয় নিশ্চিত করেন সূর্যকুমার যাদব।

এর আগে 'জিততেই হবে', এমন সমীকরণের ম্যাচে টসে জিতে ব্যাটিং বেছে নেন 'বার্থডে বয়' বিরাট কোহলি। ভারতীয় অধিনায়কের আজ ৩৩তম জন্মদিন। এই ম্যাচে ভারতের একাদশে একটি পরিবর্তন আসে। পেসার শার্দূল ঠাকুরের জায়গায় এসেছেন বরুণ চক্রবর্তী। অন্যদিকে স্কটল্যান্ড নামে অপরিবর্তিত একাদশ নিয়ে।

ব্যাটিংয়ে নেমে ধীরগতির শুরু পায় স্কটল্যান্ড। দুই ওপেনারের জুটি স্থায়ী হয় ২.৩ ওভার পর্যন্ত, রান আসে ১৩। এর মধ্যে অধিনায়ক কাইল কোয়েটজার মাত্র ১ রান করে ভারতীয় পেসার জসপ্রিত বুমরাহর বলে বোল্ড হয়ে ফিরে যান।

চতুর্থ ওভারে ভারতীয় স্পিনার রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে পর পর ৩ চার মেরে ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত দেন জর্জ মানজি। কিন্তু ষষ্ঠ ওভারে তাকে বিদায় করেন ভারতীয় পেসার মোহাম্মদ শামি। হার্দিক পান্ডিয়ার হাতে ক্যাচ তুলে দেওয়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ১৯ বলে ২৪ রান।

মানজি যেতেই ফের বিপর্যয়ের মুখে পড়ে স্কটিশরা। রবীন্দ্র জাদেজার এক ওভারে বিদায় নেন দুই স্কটিশ ব্যাটসম্যান, রিচি বেরিংটন (০) এবং ম্যাথু ক্রস (২)। বেরিংটন বোল্ড হয়ে ফেরেন। আর ক্রস ফেরেন লেগ বিফোরের ফাঁদে পড়ে। তবে এমন বিপর্যয়ের মুহূর্তেও ১২ বলে ২ চার ও ১ ছক্কায় ২১ রানের ইনিংস খেলেন মাইকেল লিস্ক। অবশ্য তাকেও লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলেন জাদেজা।

৫৮ রানে ৫ উইকেট হারানো স্কটল্যান্ডকে আর মাত্র ৫ রান যোগ হতেই ষষ্ঠ ধাক্কা দেন অশ্বিন। তার বলে পান্ডিয়ার হাতে ক্যাচ তুলে দেন স্কটিশ লোয়ার মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান (১)। পাঁচে নেমে একপ্রান্ত আগলে রাখা কলাম ম্যাকলাউডকেও (১৬) বেশিদূর যেতে দেননি মোহাম্মদ শামি। ভারতীয় পেসারের বলে বোল্ড হয়ে ফেরেন তিনি। পরের বলেই রান আউট হয়ে ফেরেন সাফিয়ান শরীফ (০)। তৃতীয় বলে ইভান্সকে বোল্ড করে ডাক উপহার দেন শামি। ১৮তম ওভারে এসে লড়াই করতে থাকা মার্ক ওয়াটকে (১৪) বোল্ড করেন বুমরাহ।

বল হাতে ৩টি করে উইকেট তুলে নেন মোহাম্মদ শামি ও রবীন্দ্র জাদেজা। এছাড়া ২টি উইকেট গেছে বুমরাহর ঝুলিতে। ১টি উইকেট অশ্বিনের দখলে।

বুমরাহ ২ উইকেট পাওয়ার পথে খরচ করেছেন মাত্র ১০ রান। ওভারপিছু রান দিয়েছেন ২.৭২ করে। সেই সঙ্গে সতীর্থ যুজবেন্দ্র চাহালকে (৬৩ উইকেট) ছাড়িয়ে টি-টোয়েন্টিতে ভারতের জার্সিতে সবচেয়ে বেশি উইকেটের মালিকও এখন ডানহাতি পেসার।

ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন ভারতীয় অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা।

XS
SM
MD
LG