অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

খালেদা জিয়ার জন্য বিদেশ থেকে চিকিৎসক আনা যাবে- আনিসুল হক


বাংলাদেশের আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী অ্যাডভোকেট আনিসুল হক

"বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য বিদেশ থেকে যত বড় চিকিৎসক তারা আনতে চায়, তা আনতে পারেন। এতে সরকার কোনো ধরনের বাধা দেবে না," বললেন আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক। শনিবার আখাউড়া পৌরসভা মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচন উপলক্ষে উপজেলা আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় ঢাকা থেকে ভিডিও কনফারেন্সিংয়ের মাধ্যমে যুক্ত হয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

আনিসুল হক বলেন, "প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মানবিকতার দৃষ্টান্ত হিসেবে আইনে যা করা সম্ভব খালেদা জিয়ার জন্য তা করেছেন। ভুলে গেলে চলবে না বাংলাদেশের আদালতে তিনি সাজাপ্রাপ্ত। একজন সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে আইনে যে সুবিধা দেওয়া যায়, তা দেওয়া হয়েছে"।

তিনি আরও বলেন, "খালেদা জিয়ার চিকিৎসার জন্য বিএনপি যদি বিদেশ থেকে চিকিৎসক আনতে চায়, আনতে পারে। তারা যত বড় চিকিৎসক আনতে চায়, আনতে পারবে। সেক্ষেত্রে সরকার কোনো ধরনের বাধা দেবে না। তবে, বিএনপিকে এটাও মনে রাখতে হবে দেশের আইনে যা আছে, তার বাইরে গিয়ে সরকার কিছু করবে না।"

ওদিকে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে দ্রুত বিদেশে পাঠানো না হলে সরকার পতনের আন্দোলন শুরু করা হবে বলে হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলীয় নেতারা। শনিবার বিকেলে গণঅনশনের কর্মসূচির সমাপনী বক্তব্যে বিএনপির মহাসচিবসহ দলের সিনিয়র নেতারা এসব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, "এ সরকারকে খুব পরিষ্কার ভাষায় আমরা এ গণঅনশন থেকে বলে দিতে চাই যে, দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে মুক্তি দিয়ে তাকে বিদেশে চিকিৎসার জন্য পাঠানোর ব্যবস্থা করুন। তা না হলে এবার যে আন্দোলন শুরু হলো গণঅনশনের মধ্য দিয়ে সেই আন্দোলন আপনাকে গদিচ্যুত করবে।"

বিএনপির মহাসচিব বলেন, "আগামী ২২ নভেম্বর দেশনেত্রী খালেদা জিয়াকে বিদেশে পাঠিয়ে সুচিকিৎসা করার দাবিতে এবং একইসঙ্গে তার মুক্তি দেওয়ার দাবিতে ঢাকায় জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে সমাবেশ ও সারাদেশে মহানগর-জেলা-উপজেলাগুলোতে সমাবেশ হবে। এ সমাবেশে আমরা আবারও এ দাবি নিয়ে সামনে আসবো। তারপরে যদি না হয়, আমরা আবারও কর্মসূচি ঘোষণা করবো।"

তিনি আরও বলেন, "বিদেশি ডাক্তাররা বলেছেন, দেশে খালেদা জিয়ার চিকিৎসা অসম্ভব উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, তিনি আজকে এত অসুস্থ যে, জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে অবস্থান করছেন। আমরা ডাক্তারদের সঙ্গে কথা বলেছি বার বার, বিদেশে ডাক্তারদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা বলছেন, দেশনেত্রীর বাংলাদেশে চিকিৎসা দেওয়া অসম্ভব। তার যেসব জটিলতা আছে সেই জটিলতাগুলো বিদেশে আরও অ্যাডভান্স সেন্টারে টিট্রমেন্ট দেওয়া না হলে তাকে সুস্থ করা যাবে না। তার (খালেদা জিয়া) পরিবার থেকে আবেদন জানানো হয়েছিল তাকে বিদেশে ট্রিটমেন্ট করার সুযোগ দেওয়ার জন্য। তারা সেই সুযোগ দেয়নি।"

XS
SM
MD
LG