অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

চলে গেলেন রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক


চলে গেলেন রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক

বাংলাদেশের জনপ্রিয় রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত জটিলতায় রোববার সকাল ৬টা ২০ মিনিটে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তকাল করেছেন।

বাংলাদেশের জনপ্রিয় রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী মিতা হক করোনাভাইরাস সংক্রমণজনিত জটিলতায় রোববার সকাল ৬টা ২০ মিনিটে বাংলাদেশ স্পেশালাইজড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ইন্তকাল করেছেন।মিতা হক করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন চারদিন আগে করোনাভাইরাস রিপোর্ট নেগেটিভ আসার পর হাসপাতাল থেকে তাকে বাসায় নেওয়া হয়েছিল কিন্তু গতকাল দুপুরে মিতা হকের শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় আবার হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। আরও অবনতি ঘটলে রাতে আইসিইউতে ভেল্টিনেশনে রাখা হয়েছিল। সকালে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।আজ রোববার সকাল ১১টায় মিতা হকের মরদেহ ছায়ানট প্রাঙ্গণে নেওয়া হয়।এরপর কেরাণীগঞ্জের পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হয় প্রয়াত অভিনেতা ও নির্দেশক খালেদ খান ছিলেন মিতা হকের স্বামী।খালেদ খান ও মিতা হক দম্পতির একমাত্র সন্তান ফারহিন খান জয়িতাও একজন রবীন্দ্রসংগীত শিল্পী। সংগীতে গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য ২০২০ সালে মিতা হককে একুশে পদক দেয় হয়। ২০১৬ সালে শিল্পকলা পদক পান তিনি।সুরতীর্থ নামে তিনি একটি গানের স্কুল পরিচালনা করতেন।পাশাপাশি ছায়ানট সংগীত বিদ্যায়তনের রবীন্দ্রসংগীত বিভাগের প্রধান হিসেবেও কাজ করেছে।রবীন্দ্রসংগীত সম্মেলনপরিষদের সহসভাপতির দায়িত্বও পালন করেছেন এই গুণীশিল্পী।মিতা হকের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শোক প্রকাশ করেছেন। মিতা হকের মৃত্যুতে সংগীতাঙ্গনে শোকের ছায়া নেমে আসে।ঢাকা থেকে নাসরিন হুদা বিথীর রিপোর্ট।

please wait

No media source currently available

0:00 0:01:33 0:00


XS
SM
MD
LG