অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

৩১ জানুয়ারীর মধ্যে সব শিক্ষার্থীকে কমপক্ষে এক ডোজ টিকা দেয়া হবে- শিক্ষামন্ত্রী দীপু মনি


সরকারের নির্দেশ অনুসারে একজন স্বাস্থ্যকর্মী ঢাকায় একটি স্কুল প্রাঙ্গনে এক শিক্ষার্থীকে কোভিড-১৯ টিকা দিচ্ছেন। ১ নভেম্বর, ২০২১। (ছবি-এএফপি/মুনির উজ জামান)

বাংলাদেশের শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, ১২ বছর বা তার বেশি বয়সী সব শিক্ষার্থীকে ৩১ জানুয়ারীর মধ্যে কমপক্ষে একটি ডোজ কোভিড -১৯ টিকার টিকা দেয়া হবে যাতে তারা স্কুল ও কলেজে যেতে পারে। সোমবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, "যাদের টিকা নেয়া হয়নি তারা ১২ জানুয়ারীর পর অনলাইনে ক্লাস করবে। তবে ভ্যাকসিন নেয়ার পর সশরীরে ক্লাস করবে।"

করোনাভাইরাসের সংক্রমণ বাড়লেও এখনই শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করা হবে না জানিয়ে দীপু মনি বলেন, "সীমিত পরিসরেই আপাতত পাঠদান চলবে। এক সপ্তাহ আমরা এভাবে মনিটর করবো, যদি বেড়ে যায় তবে বন্ধ করে দেয়া হবে।"

শিক্ষামন্ত্রী বলেন, "আমরা যখন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিয়েছি তখন এমন পরিস্থিতি ছিল। তখন শিক্ষার্থীদের ভ্যাকসিনও দেয়া ছিল না। এখন যে পরিস্থিতি বিদ্যমান তাতে আমাদের শিক্ষার্থীদের বড় একটা অংশের ভ্যাকসিন নেয়া শেষ হয়েছে।"

তিনি বলেন, "স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কাজ চলমান রয়েছে। নিয়মিত সেটা মনিটর করা হচ্ছে। এখন আরও জোরদার করা হয়েছে। আগে শুধু স্কুলগগুলোতে মনিটর করা হতো এখন বিশ্ববিদ্যালয়ে মনিটর বাড়ানো হবে।"

কওমি মাদ্রাসা বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, "কওমি মাদরাসায় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলা ও মনিটর করায় ঘাটতি রয়েছে। যেহেতু কওমি মাদ্রাসা আমাদের আওতায় নেই সেজন্য স্থানীয় প্রশাসনের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেব।"

দীপু মনি বলেন, "করোনা সংক্রমণ সংক্রান্ত জাতীয় কারিগরি কমিটির সঙ্গে বৈঠকে নানা বিষয় পর্যালোচনা করা হয়েছে। সেসব বিষয় বিবেচনা করে আমরা এবার শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ করবো না। সকল শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে স্বাস্থ্যবিধি জোরদার করবো। আগের মতো সীমিত পরিসরেই কার্যক্রম চলবে। আমরা সাতদিন দেখবো এভাবে তারপর আবার বৈঠকে বসবো।"

XS
SM
MD
LG