অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেলসহ ৯ নেতা গ্রেপ্তার


বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ার

বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামীর সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ারসহ দলটির ৯ জন নেতাকর্মীকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। সোমবার রাতে ঢাকার বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার একটি বাসা থেকে তাদের আটক করে ভাটারা থানা পুলিশ। গ্রেপ্তার হওয়া নেতাদেরমধ্যে সহকারি সেক্রেটারি জেনারেল মাওলানা রফিকুল ইসলাম খান ও হামিদুর রহমান আজাদও রয়েছেন।

রাষ্ট্রবিরোধী ষড়যন্ত্র ও গোপন বৈঠক করায় তাদের আটক করা হয়েছে বলে ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার মোঃ শফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন।

তবে জামায়াতের তরফে বলা হয়েছে, দলের নিয়মিত কার্যক্রমের অংশ হিসেবে বৈঠক করার সময় ওই নেতাদের পুলিশ আটক করে নিয়ে যায়। দলের আমীর ডা. শফিকুর রহমান সোমবার রাতে এক বিবৃতিতে বলেন, সরকার দীর্ঘ এক যুগ ধরে জনগণের রাজনৈতিক অধিকার কেড়ে নিয়েছে। কোনো দলকেই তাদের রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করতে দিচ্ছে না। তিনি বলেন, আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, প্রত্যেক রাজনৈতিক দলেরই তাদের রাজনৈতিক কার্যক্রম পরিচালনা করার অধিকার আছে। এটা দেশের জনগণের নাগরিক ও সাংবিধানিক অধিকার। এ অধিকার থেকে বঞ্চিত করার এখতিয়ার কারো নেই।

জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল মিয়া গোলাম পরওয়ার এর আগেও কয়েকবার গ্রেপ্তার হন। মানবতা বিরোধী অপরাধে দলটির শীর্ষ নেতাদের ফাঁসির দণ্ড কার্যকর হওয়ার পর দলটির নিবন্ধনও বাতিল করে দিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

ঢাকার বড় মগবাজারে অবস্থিত দলটির রাজনৈতিক কার্যলয় বন্ধ অনেক দিন থেকে। বিরোধী রাজনৈতিক জোটের অংশীদার জামায়াতের প্রকাশ্য রাজনৈতিক কর্মসূচিও খুব একটা দেখাযায় না। তবে দলের নেতাদের দাবি, তারা সাংগঠনিক কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন। করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতির কারণে দেশে রাজনৈতিক সভা- সমাবেশ নিষিদ্ধ থাকায় দলগুলোর কার্যক্রমও সীমিত ছিল।

এই সময়ে রাজনৈতিক নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তারের ঘটনাও ছিল আগের তুলনায় কম।করোনার প্রকোপ কমে আসায় সম্প্রতি সরকারি অনেক বিধি নিষেধ তুলে নেয়া হয়েছে।দেড় বছর পর শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার ঘোষণা এসেছে। তবে রাজনৈতিক সভা-সমাবেশের ওপর নিষেধাজ্ঞা এখনও বহাল রাখা হয়েছে। এ অবস্থায় হঠাৎ করে জামায়াতের এই শীর্ষ নেতাদের গ্রেপ্তারের পর নতুন করে চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে।

XS
SM
MD
LG