অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ট্টগ্রাম বন্দরে প্রবৃদ্ধি বেড়েছে


করোনা মহামারির মধ্যে প্রবৃদ্ধি ধরে রেখেছে দেশের আমদানী-রফতানী বাণিজ্যের প্রধান কেন্দ্র বিন্দু চট্টগ্রাম বন্দর। করোনা সংক্রমণের কারণে চলতি বছরের জানুয়ারি থেকেই দেশের আমদানি-রফতানি বাণিজ্যে কিছুটা ভাটা পড়ে। বছরের শুরুতে বন্ধ হয়ে যায় চীন থেকে আমদানি। ধাক্কা লাগে রফতানি ব্যাণিজ্যে। এরপরও বৈরি পরিবেশে পুরো মাত্রায় সচল ছিল চট্টগ্রাম বন্দর। আগের বছরের তুলনায় সদ্য শেষ হওয়া অর্থ বছরের শেষ ছয় মাসে প্রবৃদ্ধি বেড়েছে আট দশমিক ১৩ শতাংশ। কন্টেইনার উঠা-নামা, কার্গো হ্যান্ডলিং এবং জাহাজের আসা যাওয়া বেড়েছে বলে জানান বন্দর সচিব মোহাম্মদ ওমর ফরুক।
এদিকে, করোনার কারনে বিশ্ব বাণিজ্যে কিছুটা স্থবিরতা তৈরী হলেও ২০১৯-২০ অর্থ বছরে চট্টগ্রাম বন্দরে পণ্যবাহী জাহাজ ভিড়েছে তিন হাজার ৭৬৪টি। যা আগের বছরের চেয়ে ৬৫টি বেশি বলে জানান শিপিং এজেন্ট সংস্থা পিআইএল বাংলাদেশ’র ম্যানেজার আবদুল্লাহ জহির।
প্রবৃদ্ধির এই ধারাবাহিকতা রক্ষায় সরকারকে আরো উদ্যোগী হওয়ার কথা বলছেন চট্টগ্রাম চেম্বারের সভাপতি মাহবুব উল আলম।
বাংলাদেশের আমদানী-রফতানী বাণিজ্যের ৯২ শতাংশই পরিবাহিত হয় চট্টগ্রাম বন্দর দিয়ে। এই বন্দরের মাধ্যমে বছরে রাজস্ব আয় ৬০ হাজার কোটি টাকা। হাসান ফেরদৌস, চট্টগ্রাম।

মন্তব্যগুলো দেখুন

XS
SM
MD
LG