অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ঢাকায় বৃটিশ রাষ্ট্রদূতকে তলব


ঢাকাস্থ ভারপ্রাপ্ত বৃটিশ হাইকমিশনার জাভেদ প্যাটেল

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ‘হাউজ অ্যারেস্ট’ রাখা হয়েছে মর্মে বৃটিশ ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিস যে রিপোর্ট করেছে তার কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ।

বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়াকে ‘হাউজ অ্যারেস্ট’ রাখা হয়েছে মর্মে বৃটিশ ফরেন অ্যান্ড কমনওয়েলথ অফিস যে রিপোর্ট করেছে তার কড়া প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ।

এ নিয়ে ঢাকাস্থ ভারপ্রাপ্ত বৃটিশ হাইকমিশনার জাভেদ প্যাটেলকে রোববার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে তলব করা হয়।

তাকে স্পষ্ট করে বলা হয়, ওই রিপোর্টে খালেদা জিয়ার কারাগার থেকে মুক্তিপরবর্তী সময়ে বাসায়অবস্থানকে ‘হাউজ অ্যারেস্ট’ হিসেবে বর্ণনা করাটা চরম বিভ্রান্তিমূলক।

বৃহস্পতিবার বৃটেনের পররাষ্ট্র, কমনওয়েলথ ও উন্নয়ন দপ্তরের বার্ষিক মানবাধিকার রিপোর্ট প্রকাশ করা হয়।ওই রিপোর্টে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতির সার্বিক উন্নতি হয়নি বলে দাবি করার পাশাপাশি খালেদা জিয়ার অবস্থান নিয়ে মন্তব্য ছিল।

বৃটিশ দূতকে তলবের সঙ্গে একটি ‘প্রটেস্ট নোট’ও দেয়া হয়েছে। এতে বলা হয়, বৃটেনের মানবাধিকার রিপোর্টের বাংলাদেশ চ্যাপ্টারে এমন কিছু বিষয়ের অবতারণা করা হয়েছে, যা ঢাকাকে হতাশ করেছে।

খালেদা জিয়ার বর্তমান অবস্থানের বিষয়ে কোনো বিভ্রান্তি থাকলে ভারপ্রাপ্ত হাইকমিশনারকে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ করার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। একইসঙ্গে বাংলাদেশ সরকার কিংবা সরকারি দল আওয়ামী লীগ সম্পর্কে কটাক্ষমূলক ও বিভ্রান্তিকর কোনো মন্তব্য করা থেকে বৃটেনকে বিরত থাকতে সতর্ক করা হয়।

মানবাধিকার রিপোর্টে রোহিঙ্গাদের বিষয়ে যে মন্তব্য এসেছে তাও প্রত্যাখ্যান করে ঢাকা।

তলবের জবাবে বৃটিশ দূত জানিয়েছেন, বাংলাদেশের উদ্বেগের বিষয়টি তিনি তার সরকারকে জানাবেন। একইসঙ্গে মানবাধিকার ও সুশাসন প্রশ্নে বাংলাদেশের সঙ্গে তার সরকারের ইতিবাচক আলোচনা অব্যাহত থাকবে।

XS
SM
MD
LG