অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নতুন বছরে প্রথম ব্যালিষ্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করেছে উত্তর কোরিয়া


কেসিটিভি থেকে নেয়া ছবিতে দেখা যাচ্ছে উত্তর কোরিয়ার একটি অজ্ঞাত স্থান থেকে ব্যালিষ্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া দেখছেন কিম জং উন। (ছবি- এএফপি)

দক্ষিণ কোরিয়া এবং জাপান জানিয়েছে তাদের সন্দেহ বুধবার উত্তর কোরিয়া একটি ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেছে যা পিয়ংইয়ং এর জন্যে বছরের প্রথম অস্ত্র পরীক্ষা। দক্ষিণ কোরিয়ার সেনা সূত্র বলছে মনে করা হচ্ছে উত্তর কোরিয়ার স্থলভাগ থেকে পূর্ব উপকূল দিয়ে সমুদ্রের দিকে একটি ব্যালিষ্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়া হয়। জাপানের প্রতিরক্ষামন্ত্রী নবুও কিশির মতে ক্ষেপণাস্ত্রটি প্রায় ৫০০ কিলোমিটার পর্যন্ত যায়। বিস্তারিত আর কিছু জানা যায়নি। উত্তর কোরিয়া সাধারণত ক্ষেপণাস্ত্র ছোঁড়ার পরের দিন রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যমে ঘোষণা দেয়।

অক্টোবরে সাবমেরিন থেকে ব্যালিষ্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার পর থেকে উত্তর কোরিয়ার এটাই প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ। ২০১৯ সালের মাঝামাঝি সময় কিম জং উন এবং যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক প্রেসিডেন্ট ডনাল্ড ট্রাম্পের মধ্যে পারমাণবিক আলোচনা ভেস্তে যাবার কিছু পর থেকে উত্তর কোরিয়া ঘনঘন স্বল্পমাত্রার ব্যালিষ্টিক ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করে আসছে। জাপানের প্রধানমন্ত্রী ফুমিও কিশিদা বুধবার সাংবাদিকদের বলেছেন এই পরীক্ষা “সত্যিই দুঃখজনক”। দক্ষিণ কোরিয়ার জাতীয় নিরাপত্তা পরিষদ জরুরী বৈঠক করে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে এবং উত্তর কোরিয়ার সঙ্গে দ্রুত আলোচনা পুনরায় শুরু করার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দিয়েছে। উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম নববর্ষের ভাষণ দেয়ার অল্প কদিনের মাথায় এই পরীক্ষাটি করা হলো, যে ভাষণে উত্তর কোরিয়ার এ বছরের পররাষ্ট্র নীতি সম্পর্কে সামান্যই ইঙ্গিত ছিল। যদিও কিম তার ভাষণে দেশের অর্থনীতি চাঙ্গা করার ওপর গুরুত্ব দেন, "অস্থিতিশীল" আন্তর্জাতিক অবস্থা মোকাবেলায় তিনি জাতীয় প্রতিরক্ষাকে আরও শক্তিশালী করার প্রয়াস চালিয়ে যাবারও প্রতিশ্রুতি দেন। জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের কয়েক দফা প্রস্তাব​অনুযায়ী উত্তর কোরিয়ার জন্যে যে কোনও পাল্লার সব ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ নিষিদ্ধ। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র নেড প্রাইস উত্তর কোরিয়ার সাথে আলোচনায় বসার ব্যাপারে যুক্তরাষ্ট্রের প্রস্তাবের কথা আবার জানিয়েছেন।

XS
SM
MD
LG