অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নাইজেরিয়ায় বিপুল ধান উৎপাদন–পিরামিডকৃতি স্তূপের ছবি প্রকাশ


নাইজেরিয়ার আবুজাতে বৃহত্তম ধানের ব্যাগ দিয়ে পিরামিডকৃতি স্তূপের ছবি। ১৮ জানুয়ারি ২০২২। (ছবি-এএফপি/কোলা সুলাইমন)

নাইজেরিয়া চলতি বছর বিপুল পরিমাণ ধান উৎপাদন হয়েছে বলে জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মুহাম্মাদু বুহারি। উৎপাদন বৃদ্ধিতে এ বছর স্বল্প সুদে নেওয়া ঋণ পরিশোধে উৎপাদিত এই ধান ব্যবহৃত হবে বলে জানান তিনি।

খাদ্যশস্যে আমদানি নির্ভরতা কমাতে দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক স্বল্প সুদে কৃষকদের ঋণ প্রদান এবং প্রযুক্তিগত পরামর্শ প্রদান করে থাকে যাতে তারা উৎপাদন বাড়াতে পারে।

সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা বলেন, ধানের উৎপাদন স্বাভাবিকের থেকে দ্বিগুন হওয়ায় ধান আমদানির ওপর নির্ভরতা কমবে। দেশটির কেন্দ্রীয় ব্যাংক ক্রেতাদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে বাজার মুল্যের চেয়ে কম মুল্যে ধান বিক্রয় করবে। ক্রেতারা এতদিন এই প্রধান খাদ্যশস্যের জন্যে অতিরিক্ত মুল্য গুনছিলেন।

নাইজেরিয়া চেম্বার অব কমার্স মঙ্গলবার (১৮ জানুয়ারি) এক অনুষ্ঠানে এই পিরামিডাকৃতি ধানের বস্তার স্তূপের ছবি প্রকাশ করে।

এই অনুষ্ঠানের সভাপতি ছিলেন প্রেসিডেন্ট বুহারি। অন্য কর্মকর্তাদের মধ্যে ছিলেন বিভিন্ন প্রদেশ এবং কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নরেরা।

বুহারি কৃষকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে তাদের আরও বেশি করে সরকারের এই কর্সুচিতে কাজ করতে আহ্বান জানান।

“আমি আশা করি খাদ্যশস্যে নাইজেরিয়ার আত্মনির্ভরতা অর্জনে অন্য কৃষিপণ্যের উৎপাদকেরাও ধান চাষিদের এই পথ অনুসরণ করবেন”, প্রেসিডেন্ট বুহারি বলেন।

নাইজেরিয়ার কেন্দ্রীয় ব্যাংক ২০১৫ সালে অ্যাংকর বরোয়ারস প্রোগ্রাম নামের এই কর্মসূচিটি চালু করে। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ বলেন, কর্মসূচি চালু হওয়ার পাঁচ বছর পর এটির সুফল পাওয়া গেল। এর ফলে চাল আমদানি উল্লেখযোগ্য হারে কমে গেছে এবং স্থানীয় উৎপাদন এক বছরে সাড়ে চার টন থেকে নয় টনে উত্তীর্ণ হয়েছে।

কৃষকদের পরিশ্রম সফল হয়েছে জানিয়ে কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর গডউইন এমেফিয়েল বলেন, “কৃষক এবং তাদের বিভিন্ন সংগঠনকে ধন্যবাদ দিতে চাই আমি। তাদের দেশপ্রেম, ধৈর্য এবং অধ্যাবসায় প্রশংসার যোগ্য। গত কয়েক বছর অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করেছেন তারা—অভ্যুত্থান, দস্যুবৃত্তি, লকডাউন এবং এমন আরও অনেক প্রতিবন্ধকতা। দেশজুড়ে বিদ্রোহের সময় অনেক কৃষককে হারিয়েছি আমরা, অনেকে মাসের পর মাস তাদের জমিতে কাজ করতে পারেননি”।

২০১৫ সালে নাইজেরিয়া চাল আমদানি নিষিদ্ধ করে।

মঙ্গলবার কর্মকর্তারা আশা প্রকাশ করেছেন, এই পন্থায় দেশটির ধান উৎপাদন ব্যপক বাড়তে পারে। তারা এও বলেছেন, বিপুল উৎপাদনের ফলে দেশীয় বাজারে ধানের দাম হ্রাস পেতে পারে।

অন্যদিকে, দেশটির ধান উৎপাদন বিষয়ক সংগঠন কৃষকদের এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে পাশ্ববর্তী পশ্চিম আফ্রিকার দেশগুলোতে ধান রপ্তানির আহ্বান জানিয়েছে।

XS
SM
MD
LG