অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের সাতক্ষীরায় ভাসমান মসজিদ 


বাংলাদেশের সাতক্ষীরায় অভিনব ভাসমান মসজিদ ।

নদীর পাড়ে দাঁড়িয়ে শোনা যায় আজানের আওয়াজ। সেই আওয়াজ ভেসে আসছে নদীবক্ষ থেকে। ভাসছে এক নৌকা। আর এই নৌকার ওপরেই ৫০ জন মিলে নামাজ পড়ছেন। এই অভিনব ভাসমান মসজিদ তৈরি হল বাংলাদেশের সাতক্ষীরায়।

আমফান ও ইয়াসের মতো ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে বিধ্বস্ত হয়ে গেছে বাংলাদেশের একাধিক এলাকা। সেই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাব থেকে বাদ যায়নি সাতক্ষীরার বাইতুন নাজাদ মসজিদ। ভেঙে পড়ে সেই মসজিদ। বিকল্প হিসেবে তাই এই ভাসমান মসজিদের পরিকল্পনা করেন মোঃ শামসুর রহমান। এগিয়ে আসেন অনেকেই।

৫০ ফুট লম্বা ১৬ ফুট চওড়া এই নৌকার ওপরেই পুরো মসজিদটা স্থাপন করা হয়েছে। নৌকার ওপরেই সমস্ত ব্যবস্থা করা আছে। বাথরুম থেকে সাউন্ডের ব্যবস্থা সব মিলিয়ে সেজে উঠেছে এই নৌকাটি। পাঁচ লাখ টাকা ব্যয়ে এই মসজিদটি নির্মাণ করা হয়। ১২ দিনে এই মসজিদ তৈরির কাজ শেষ হয়।

গত ৫ অক্টোবর এই মসজিদটি উদ্বোধন করা হয়। বাইতুন মসজিদের পাশেই এই ভাসমান মসজিদটি তৈরি করা হয়। দিনে পাঁচবারের আজান ও নামাজ পড়ার সমস্ত কাজই এই মসজিদে সংগঠিত হবে। নামাজের সময় ঘাটে এসে ভিড়ে এই নৌকাটি। তারপরেই সেই নৌকার ওপরে উঠেই নামাজ পড়েন এলাকাবাসী। দেশ প্রথম এই ভাসমান মসজিদ তৈরি হল। যে নিয়ে রীতিমতো আনন্দিত এলাকাবাসী।

XS
SM
MD
LG