অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশে করোনা কালে ধর্ষণের ঘটনা বেড়েছে


বাংলাদেশে করোনা কালে ধর্ষণের ঘটনা বেড়েছে

বাংলাদেশে করোনা কালেও ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে লাগামহীন ভাবে। বাংলাদেশ জাতিয় মহিলা আইনজীবী সমিতির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে চলতি ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে আগস্ট এই ৮ মাসে দেশে অন্তত ৮৯২ জন নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন।

বাংলাদেশে করোনা কালেও ধর্ষণের ঘটনা ঘটছে লাগামহীন ভাবে। বাংলাদেশ জাতিয় মহিলা আইনজীবী সমিতির এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে চলতি ২০২০ সালের জানুয়ারি থেকে আগস্ট এই ৮ মাসে দেশে অন্তত ৮৯২ জন নারী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে এ সকল ধর্ষিতা নারীদের মধ্যে অন্তত ৪১ জন আহত অবস্থায় মারা গেছেন এবং অপর ৯ জন আত্মহত্যা করেছেন। এতে আরও বলা হয় এ সময়কালে ১৯২ জন নারীকে ধর্ষণের চেষ্টা করা হয়েছিল।

অতি সম্প্রতি সিলেটের এম সি কলেজের ছাত্রাবাসে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লিগের ছাত্র সংগঠন ছাত্র লীগের নেতা কর্মীদের দ্বারা গন ধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নব বিবাহিত গৃহবধূ যা দেশের সর্বস্তরের মানুষের বিবেককে নাড়া দিয়েছে।

মানবাধিকার কর্মীরা বলছেন ধর্ষণের যে সংখ্যা বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিবেদনে উঠে আসে তাতে এই নিকৃষ্টতম অপরাধের পুরো চিত্র পাওয়া যায়না কারন পত্রিকার প্রতিবেদন ও নিজস্ব অনুসন্ধানের ভিত্তিতে এসকল প্রতিবেদন তৈরি করা হয়। তারপরও যে সংখ্যা পাওয়া যাচ্ছে তাকে ভয়াবহ বলে উল্লেখ করে তাঁরা বিচারহীনতাকেই এই ধর্ষণ রোধের পথে অন্যতম বাঁধা হিসেবে দেখছেন।

জাতিয় মহিলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সালমা আলির কাছে দেশে ধর্ষণের ঘটনা কেন রোধ করা যাচ্ছে নাতা জানতে চাইলে তিনি ভয়েস অফ অ্যামেরিকাকে বলেন আইনের দুর্বল প্রয়োগ এবং জনসচেতনতার অভাবের কারনে ধর্ষণের ঘটনা দিন দিন বাড়ছে। সালমা আলি বলেন ধর্ষণের বিরুদ্ধে রাষ্ট্র যদি জিরো টলারেন্স নিতি গ্রহণ করে এবং একই সাথে সমাজও যদি সচেতন হয় তবেই কেবল এ নিকৃষ্ট অপরাধের হাত থেকে রক্ষা পাওয়া যেতে পারে।

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:54 0:00
সরাসরি লিংক



XS
SM
MD
LG