অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিশ্বে ১০ মিলিয়ন মানুষ করোনায় সংক্রমিত, মারা গেছেন ৫ লাখ মানুষ


বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ এর বিস্তার বাড়ছে। যুক্তরাষ্ট্রের ৩০টি রাজ্যে করোনার বিস্তার আশংকাজনক হারে বেড়েই চলেছে। অনেকগুলো রাজ্যে লকডাউন শিথিলের প্রস্তুতি থেমে গেছে। গোটা বিশ্বে ১০ মিলিয়ন মানুষ করোনায় সংক্রমিত। ৫ লাখেরও বেশি মানুষ মারা গেছে।

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ এর বিস্তার বাড়ছে। যুক্তরাষ্ট্রের ৩০টি রাজ্যে করোনার বিস্তার আশংকাজনক হারে বেড়েই চলেছে। অনেকগুলো রাজ্যে লকডাউন শিথিলের প্রস্তুতি থেমে গেছে। গোটা বিশ্বে ১০ মিলিয়ন মানুষ করোনায় সংক্রমিত। ৫ লাখেরও বেশি মানুষ মারা গেছে।

please wait

No media source currently available

0:00 0:06:19 0:00

সংক্রমণের হার এ্যাতোই বেড়েছে যে ম্যারিল্যান্ডের ফোর্ট ওয়াশিংটন মেডিকেল সেন্টারের ৪টি আইসিইউ এখন ১৬টি করা হয়েছে।

গোটা বিশ্বে ১০ মিলিয়ন মানুষ করোনায় সংক্রমিত, ৫ লাখেরও বেশি মানুষ মারা গেছে।
please wait

No media source currently available

0:00 0:01:58 0:00


ফোর্ট ওয়াশিংটন মেডিকেল সেন্টারের রেসপিরেটরি থেরাপিস্ট কেভিন কোল নিজেরও এজমা আছে। তিনি বলেন করোনা রোগীদের শ্বাস প্রশ্বাসের কষ্ট তার জানা আছে।

“চোখের সামনে দেখছি করোনা রোগীরা কিভাবে কষ্ট পেয়ে মারা যাচ্ছেন। এরই মধ্যে মানুষ কেনো যে বীচে যাচ্ছে? ভীড়ের মধ্যে যাচ্ছে বুঝিনা। করোনা কমেনি। কমার কাছাকাছিও নেই। এইসব মানুষেরা কনরোনার বিস্তার আরো বাড়িয়ে দিচ্ছে”।

লকডাউন শিথিলের পর ৩১টি রাজ্যে করোনার বিস্তার ঘটছে। এ্যারিজোনা, ফ্লোরিডা টেক্সাসের অবস্থা ভছযাবহ।

ফ্লোরিডায় রবিবার একদিনে ৮৫০০ করোনা সংক্রমিত হয়েছেন। ২৯জন মারা গেছেন।

ফ্লোরিডা গভর্ণর রন ডেসান্টিস বলেছেন তরুণদের মধ্যে করোনার বিস্তার ঘটছে। তারা নিরাপত্তার নিয়ম কানুন মানছেন না।

“মার্চ মাসে কোভিডের সংক্রমন ছিল বেশিরভাগ ৬০ উর্ধদের মধ্যে। এপ্রিল মে থেকে ৫০ এর কম বয়সীরা সংক্রমিত হতে থাকেন। গত ১২০ দিনে ৩৩ থেকে ৩৬ বছর বয়সীদের মাধ্য এর বিস্তার ঘটছে বেশী। ৩০ বা তার নীচের বয়সীদের মধ্যেই প্রায় অর্ধেক এখন করোনা আক্রান্ত হচ্ছেন”।

ফ্লরিডার একটি হাসপাতালে কর্মরত বাংলাদেশি আমেরিকান চিকিৎসক ডা রিপন বেগ বললেন, ব্যাক্তিগত সতর্কতা না মারার কারনেই করোনার বিস্তার বাড়ছে।

ম্যারিল্যান্ডের রেজিষ্টার্ড নাস ত্রাকিনা হোগান বলেন তারা সকলেই নিরাপত্তার সব নিয়ম মেনেই কাজ করছেন। তার পরও ভয় কমছে না।

“এটা সত্যিকারের শংকার বিষয়। কোভিড কোনো ফেইক ভাইরাস না। এর বিস্তার রোধে জরুরীভাবে নিরাপত্তার সব নিয়ম মানতেই হবে। মাস্ক পরা, হাত ধোয়া নিয়মিত করতে হবে। আমরা স্বাস্থ্যকর্মীরা মানলে হবে না। সবাইকেই মানতে হবে”।

করোনা বিস্তারের এই দ্বিতীয় ধাপে স্বাস্থ্যকর্মীসহ সকলেই জোর দিচ্ছেন নিরাপদ থাকা সামাজিক নিয়ম মানার। তার পরও রোধ করা কেনো সম্ভব হচ্ছে না বলে মত দেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

XS
SM
MD
LG