অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মণিকার অভিযোগের ভিত্তিতে দিল্লী হাইকোর্টের তদন্ত কমিটি গঠন


২০২০ গ্রীষ্মকালীন অলিম্পিকে ভারতের মানিকা বাত্রা জাপানের টোকিওতে। ২৪ জুলাই ২০২১।(ছবি-এপি/কিউসুং গং)

ভারতীয় টেবিল টেনিস তারকা মণিকা বাত্রার অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত কমিটি গঠন করলো দিল্লী হাইকোর্ট। বুধবার দিল্লী আদালতে বিচারক রেখা পিল্লাই-এর এজলাশে এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হয়েছে।

আদালত এদিন তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছে। ওই কমিটির সদস্যরা দেখবেন, মণিকার অভিযোগ ঠিক কিনা।আদৌ সৌম্যদীপ রায় তাঁকে ম্যাচ ছাড়ার কথা বলেছিলেন কিনা। ওই কমিটিতে থাকবেন অবসরপ্রাপ্ত দুই বিচারক ও একজন ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব। চার সপ্তাহের মধ্যে তাঁরা রিপোর্ট জমা করবেন আদালতে।

শুধু তাই নয়, দিল্লী হাইকোর্ট সর্বভারতীয় টেবিল টেনিস সংস্থার কর্তাদের কটাক্ষ করেছেন। তারা বলেছেন, "কর্তারা কেউ সাফল্য পেলে ফুল, মালা নিয়ে অভ্যর্থনা জানানোর জন্য আগ্রহ দেখান। আর কেউ সমস্যায় পড়লে পাশে থাকেন না কেন?" এই নিয়ে বিচারক রেখা পিল্লাই প্রশ্ন তুলেছেন।

এর আগে ফেডারেশন কর্তারা মণিকাকে শোকজ করেছিলেন। সেইসময় মণিকা আদালতের দ্বারস্থ হলে আদলত মণিকার পক্ষে রায় দেয়।

মণিকা বাত্রা অভিযোগ করেছিলেন, ম্যাচ গড়াপেটা করতে বলেছিলেন কোচ সৌম্যদীপ রায়। এশীয় টিটির আসরে বাংলার সুতীর্থা মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে ম্যাচের আগে সৌম্যদীপ জানিয়েছিলেন মণিকাকে ম্যাচ ছাড়ার জন্য। কারণ ওই ম্যাচে সুতীর্থা জিতলে তিনি অলিম্পিকের ছাড়পত্র পাবেন।

এই নিয়ে মণিকার অভিযোগের ভিত্তিতে তদন্ত কমিটি বসে। সর্বভারতীয় টেবল টেনিস ফেডারেশন জানিয়ে দেয় যে, রিভিউ কমিটি ঠিক করবে কী সিদ্ধান্ত হবে। এমনকি বিষয়টি আদালত পর্যন্ত গড়ায়। মণিকা দিল্লী হাইকোর্টে এই বিষয়টি দ্রুত নিস্পত্তির জন্য আবেদন করেছিলেন।

XS
SM
MD
LG