অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় আল-কায়েদার নেতা নিহত


যুক্তরাষ্ট্রের বিমান বাহিনীর দেয়া এই ছবিতে একটি MQ-9 রিপার দেখা যাচ্ছে। ৭ নভেম্বর ২০২০।

পেন্টাগন শুক্রবার জানিয়েছে, সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় আল-কায়েদার একজন জ্যেষ্ঠ নেতা নিহত হয়েছেন।

ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াইরত যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন জোটের ব্যবহৃত দক্ষিণ সিরিয়ার একটি ঘাঁটিতে হামলার দুই দিন পর এই হামলা করা হয়েছে।

সেনাবাহিনীর কেন্দ্রীয় কমান্ডের মুখপাত্র মেজর জন রিগসবি এক বিবৃতিতে বলেন, "উত্তর-পশ্চিম সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের বিমান হামলায় আল-কায়েদার জ্যেষ্ঠ নেতা আবদুল হামিদ আল-মাতার নিহত হয়েছেন।"

তিনি বলেন, ঐ হামলায় কোনো বেসামরিক লোক হতাহত হয়নি। হামলায় একটি এমকিউ-৯(MQ-9) বিমান ব্যবহার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, " আল-কায়েদার এই জ্যেষ্ঠ নেতার অপসারণ সন্ত্রাসী সংগঠনটির আরও ষড়যন্ত্র এবং বিশ্বব্যাপী হামলা চালানোর ক্ষমতাকে ব্যাহত করবে।"

সেপ্টেম্বরের শেষে পেন্টাগন সিরিয়ার আল-কায়েদার আরেক জ্যেষ্ঠ নেতা সেলিম আবু-আহমেদকে দেশটির উত্তর-পশ্চিমে ইদলিবের কাছে বিমান হামলায় হত্যা করে।

সেন্টকমের তথ্যমতে, তিনি "আল-কায়েদা আন্ত:আঞ্চলিক আক্রমণের পরিকল্পনা, অর্থায়ন এবং অনুমোদনের দায়িত্বে ছিলেন।"

রিগসবি বলেন,"আল-কায়েদা আমেরিকা এবং আমাদের মিত্রদের জন্য এখনো একটি হুমকি। পুনর্গঠন, বাইরের সহযোগীদের সঙ্গে সমন্বয় এবং বিদেশি অভিযানের পরিকল্পনা করার জন্য আল-কায়েদা সিরিয়াকে একটি নিরাপদ আশ্রয়স্থল হিসাবে ব্যবহার করে।"

সিরিয়ায় চলমান যুদ্ধ বিদেশী সেনা, মিলিশিয়া এবং জিহাদিদের সমন্বয়ে একটি জটিল যুদ্ধক্ষেত্র তৈরি করেছে।

২০১১ সালে সরকারবিরোধী বিক্ষোভের উপর নিষ্ঠুর দমন অভিযান শুরু হওয়ার পর থেকে এই যুদ্ধে প্রায় পাঁচ লক্ষ মানুষ মারা গেছে।

XS
SM
MD
LG