অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রোহিঙ্গা শরণার্থীদের টিকা দেবে বাংলাদেশ


করোনাভাইরাসের টিকা দিচ্ছেন বাংলাদেশের একজন স্বাস্থ্যকর্মী - ফটো- এএফপি

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা প্রায় ৮ লাখ ৫০ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থীকে করোনাভাইরাসের টিকা দেবে বাংলাদেশ।

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা প্রায় ৮ লাখ ৫০ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থীকে করোনাভাইরাসের টিকা দেবে বাংলাদেশ।

শরণার্থী কমিশনার শাহ রেজওয়ান হায়াত বলেন সারা দেশে করোনাভাইরাসের ক্রমবর্ধমানসংক্রমণের প্রেক্ষিতে আগামী মাস থেকে ৫৫ বছরের ঊর্ধ্ব বয়সী ৪৮ হাজার রোহিঙ্গা শরণার্থীকে দিয়ে টিকা দেয়া শুরু হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এতে সহায়তা করছে।

রেজওয়ান হায়াত এএফপিকে বলেন, “টিকা সঙ্কটের কারণে প্রথমে আমরা ৫৫ বছর বয়সীদেরকে টিকা দিচ্ছি”।

তিনি আরও বলেন, “সঙ্কট কেটে গেলে আশা করছি ধাপে ধাপে আমরা সকলকে টিকা দিতে পারবো”।

সাম্প্রতিক সপ্তাহগুলোতে দক্ষিণ এশিয়ার এই দেশটিতে করোনাভাইরাস ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়েছে।

বাংলাদেশে এ পর্যন্ত ১০ লাখেরও বেশি মানুষ করোনা সংক্রমিত হয়েছেন, মারা গেছেন ১৭ হাজারেরও বেশি। বিশেষজ্ঞদের মতে, আসল সংখ্যা চার থেকে পাঁচগুণ বেশি।

মিয়ানমার সীমান্তে রোহিঙ্গা শিবিরগুলোতে করোনাভাইরাস মারাত্মক আকারে ছড়িয়ে পড়েছে। বেশিরভাব শরণার্থী ২০১৭ সালে মিয়ানমার সেনাদের অত্যাচার এড়াতে পালিয়ে আসেন। জাতিসংঘ বলছে এটা গণহত্যার মধ্যে পড়তে পারে।

অন্তত পাঁচটি রোহিঙ্গা শিবির লক ডাউনের আওতায় রয়েছে। সেখানে সাহায্য কর্মী ও অন্যান্য লোকদের যাতায়াত বন্ধ রাখা হয়েছে।

রোহিঙ্গাদের মধ্যে ২১০০ লোক করোনায় পজিটিভ সনাক্ত হয়েছেন এবং মারা গেছেন ২৪ জন।

রোহিঙ্গা শরণার্থীরা টিকা নিতে চান, তাঁরা চান আরও বেশি মানুষকে টিকা দেয়া হোক।

লাম্বাসিয়া শিবিরের শরণার্থী মোহাম্মদ রফিক বলেন, “শিবিরগুলোতে অত্যন্ত ঘনবসতি। ফলে সবারই সংক্রমিত হওয়ার ঝুঁকি রয়েছে”।

(এএফপি)

XS
SM
MD
LG