অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুক্তরাষ্ট্রের আট লক্ষ সরকারী কর্মি বেতন ছাড়াই কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন


প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আজ বুধবার এমোন একটি আইন প্রস্তাবে সই ক’রবেন ব’লে স্থির রয়েছে যার আওতায়, এই যে এখন আংশিক অচলাবস্থা যেটা চ’লছে, এর ভেতরে কাজ ক’রছেন কেন্দ্রীয় সরকারের যে কর্মিরা তাঁদের এ কাজের জন্যে পারিশ্রমিক পরবর্তীতে তাঁদের প্রদানের নিশ্চয়তা প্রদান করা হবে।

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প আজ বুধবার এমোন একটি আইন প্রস্তাবে সই ক’রবেন ব’লে স্থির রয়েছে যার আওতায়, এই যে এখন আংশিক অচলাবস্থা যেটা চ’লছে, এর ভেতরে কাজ ক’রছেন কেন্দ্রীয় সরকারের যে কর্মিরা তাঁদের এ কাজের জন্যে পারিশ্রমিক পরবর্তীতে তাঁদের প্রদানের নিশ্চয়তা প্রদান করা হবে। তবে ঐ পারিশ্রমিক বা বেতন কখন যে পরিশোধ করা হবে সেটা এখনো অব্দি রহস্যই রয়ে যাচ্ছে- কেননা, তাঁর এবং ডেমোক্র্যাট দলিয়দের মধ্যে সমস্যা নিস্পত্তির সম্ভাবনা- দূরস্ত এখনো।

যুক্তরাষ্ট্রে, কেন্দ্রীয় সরকারের আট লক্ষের মতো কর্মি হয় বেতন ছাড়াই বিরামহীন কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন – নয়তো তাঁদেরকে কাজে না এসে বাড়িতে থাকতে বলা হ’য়েছে – সেই ডিসেম্বরের ২২ তারিখ থেকে। ইতিমধ্যে একটি বেতন মেয়াদের পাওনা অপরিশোধিতই রয়ে গিয়েছে – আরেকটির সময় আর এক সপ্তাহ এ অচলাবস্থা বহাল রইলে উত্তীর্ণ হয়ে যাবে। যুক্তরাষ্ট্রে, প্রতি দু’ সপ্তাহ অন্তর কর্মি-কর্মচারীদের বেতন পরিশোধ করা হয়ে থাকে। ইতিমধ্যে, ট্রাম্প প্রশাসন মঙ্গলবার ব’লেছে- কর পরিশোধ সংশ্লিষ্ট বৎসরান্তিক হিসেবে নিকেশ সম্পন্ন ক’রতে কেন্দ্রীয় সরকারের হাজার হাজার কর্মিকে কাজে আসার অনুরোধ জানানো হ’য়েছে, পারিশ্রমিক আপাতত: পরিশোধ না করা হ’লেও।

আংশিক অচলাবস্থা এদিকে বহাল রয়েছে ডিসেম্বর গড়িয়ে জানুয়ারীতেও – প্রায় চার সপ্তাহব্যাপী। নিস্পত্তি নজরে পড়ছে না কারো । ট্রাম্প অনড় নিজ অবস্থানে- সীমান্ত দেয়াল গড়তে ৫ শ’ ৭০ কোটি ডলার তাঁর চাইই—ডেমোক্র্যাটরা এক শ’ ৩০ কোটি পর্যন্ত বরাদ্দে রাজি – এ পর্যন্তই। অচল পরিস্থিতি এখানেই অনড় পড়ে রয়েছে।

XS
SM
MD
LG