অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

চীন থেকে দলে দলে বাংলাদেশীরা ফিরছেন


করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর চীন থেকে দলে দলে বাংলাদেশীরা দেশে ফিরছেন। ২১শে জানুয়ারির পর রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত ৭৫৫৬ জন বাংলাদেশী দেশে ফিরেছেন।

করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার পর চীন থেকে দলে দলে বাংলাদেশীরা দেশে ফিরছেন। ২১শে জানুয়ারির পর রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত ৭৫৫৬ জন বাংলাদেশী দেশে ফিরেছেন। এর মধ্যে ছাত্রের সংখ্যাই বেশি। ছাত্র ছাড়াও শিক্ষক ও ব্যবসায়ী রয়েছেন যারা বিভিন্নভাবে সেখানে কর্মরত। হযরত শাহজালাল বিমানবন্দরের পরিচালক গ্রুপ ক্যাপ্টেন তৌহিদুল আহসান এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন। বিভিন্ন সূত্রে জানা যায়, প্রায় সাড়ে পাঁচ হাজার ছাত্র চীনের বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে অধ্যয়নরত রয়েছেন।

রোববার খুনমিং থেকে ২০০ জন যাত্রী নিয়ে চায়না ইস্টার্ন-এর একটি ফ্লাইট ঢাকা এসেছে। এই ফ্লাইটের বেশির ভাগই ছাত্র। খুনমিং-এর আটটি বিশ্ববিদ্যালয়ে ৭শ’ ছাত্র-ছাত্রী লেখাপড়া করেন। ইতিমধ্যেই ৬শ’ জনের মতো দেশে ফিরে এসেছে। ঢাকা ফেরার পর কথা হয় ওয়ালিউল্লাহর সঙ্গে। খুনমিং ইউনিভার্সিটি অব সায়েন্স অ্যান্ড টেকনোলজির পিএইচডির ছাত্র ওয়ালিউল্লাহ বললেন, সেখানে জীবন ছিল নিয়ন্ত্রিত।

করোনা ভাইরাস নিয়ে সতর্কতার প্রেক্ষাপটে প্রেসিডেন্ট আব্দুল হামিদ তার পূর্ব নির্ধারিত সিঙ্গাপুর সফর বাতিল করেছেন। চিকিৎসার জন্য আগামীকাল তার সিঙ্গাপুর যাওয়ার কথা ছিল।

ওদিকে রংপুরে চীন ফেরত শিক্ষার্থীর শরীরে করোনার লক্ষণ পাননি চিকিৎসকেরা। ১২ সদস্যের মেডিকেল বোর্ডের প্রধান প্রফেসর দেবেন্দ্র নাথ সরকার এমনটাই জানিয়েছেন। করোনা ভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে চীন ফেরত এক শিক্ষার্থীকে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সঙ্গে সঙ্গে তাকে মেডিকেলের করোনা ইউনিটের আইসোলেশন ওয়ার্ডে নেয়া হয়। কিন্তু করোনা ভাইরাস পরীক্ষা-নিরীক্ষার উপযুক্ত ব্যবস্থা না থাকায় চিকিৎসকেরা তাৎক্ষণিকভাবে নিশ্চিত হতে পারেননি ঐ ছাত্রটি আসলে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত কিনা? এ কারণেই তার রক্ত, মুখের লালা ও ঘাম ঢাকায় রোগতত্ত্ব ও রোগ নির্ণয় ইনস্টিটিউটে পাঠানো হয়। এখন পর্যন্ত সে রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। শুধুমাত্র লক্ষণ দেখেই চিকিৎসকেরা তাদের মতামত দিয়েছেন। মেডিকেল বোর্ড প্রধান অধ্যাপক দেবেন্দ্র নাথ সরকার জানিয়েছেনÑ তার শরীরে জ্বর, শ্বাসকষ্ট কোনটিই নেই। নীলফামারীর এই ছাত্রটি আড়াই বছর আগে চীনের তানহুই প্রদেশের একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করতে যান।

বাংলাদেশের সব ক’টা বিমানবন্দর ও স্থল বন্দরে বিদেশ থেকে আসা যাত্রীদের স্কিনিং করা শুরু হয়েছে। এ পর্যন্ত ৭৪ হাজার ৯১১ জনকে স্কিনিং করা হয়েছে। গত চব্বিশ ঘন্টায় ৯১৩২ জনকে স্কিনিং করা হয়। এর মধ্যে ৫৪ জনের রক্ত পরীক্ষার জন্য পাঠানো হয়। কারো রক্তেই করোনার কোন আলামত পাওয়া যায়নি।
ঢাকা থেকে মতিউর রহমান চৌধুরী

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:26 0:00


XS
SM
MD
LG