অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

১০ লক্ষেরও বেশি আফগান শরণার্থীকে পরিচয়পত্র দিয়েছে পাকিস্তান


আফগান উদ্বাস্তু স্কুল ছাত্র ছাত্রীরা , পাকিস্তানের ইসলামাবাদের উপকণ্ঠে একটি অস্থায়ী স্কুলে ক্লাস করছে. ২৯শে ডিসেম্বর, ২০২১, ছবি-এপি

পাকিস্তান আফগান শরণার্থীদের নিবন্ধন করতে এবং তাদের পরিচয়পত্র ইস্যু করার জন্য এক মাসব্যাপী অভিযান শেষ করেছে । এই পরিচয়পত্র তাদের স্বার্থ রক্ষা করবে।

জাতিসংঘের শরণার্থী সংস্থা সমর্থিত সরকার পরিচালিত অভিযান এপ্রিলের মাঝামাঝি শুরু হয়েছিল। এই নিবন্ধন অভিযান প্রায় ১০ লক্ষ ৪০ হাজার আফগান শরণার্থীর তথ্য হালনগাদ করেছে। গত ১০ বছরে পাকিস্তানে শরণার্থীদের অবস্থা যাচাই করার জন্য এটিই প্রথম বড় আকারের প্রচেষ্টা।

ইউএনএইচসিআর-এর মুখপাত্র, বাবর বেলুচ বলেছেন যে শরণার্থীদের স্মার্ট আইডেন্টিটি কার্ড নামে পরিচিত পরিচয়পত্র দেওয়া হয়েছে যা তাদের অবস্থাকে বৈধতা দেয় এবং মানবিক সহায়তা এবং অন্যান্য সুবিধাগুলির নাগাল পাওয়া তাদের জন্য সহজতর করে।

বেলুচ বলেন, "নতুন পরিচয়পত্র আফগান শরণার্থীদের জন্য একটি অপরিহার্য সুরক্ষার হাতিয়ার এবং এটি তাদের স্বাস্থ্য ও শিক্ষার সুবিধা এবং আর্থিক পরিষেবাগুলিকে দ্রুত এবং নিরাপদ ভাবে তাদের নাগালের মধ্যে নিয়ে আসে”।

ইউএনএইচসিআর জানিয়েছে যে আগস্টে তালেবান তাদের দেশ দখল করার পর থেকে তিন লক্ষেরও বেশি আফগান পাকিস্তানে পালিয়ে গেছে। তাদের অবস্থা অনিশ্চিত কারণ বেশিরভাগই অবৈধভাবে দেশে প্রবেশ করেছে এবং তাদের স্বদেশে ফেরত পাঠানো হতে পারে।

বেলুচ বলেছেন যে গত বছর রেজিস্ট্রেশন চলাকালীন পাকিস্তান জুড়ে ৪০ টিরও বেশি যাচাইকরণ কেন্দ্র স্থাপন করা হয়েছিল। তিনি বলেন, মোবাইল রেজিস্ট্রেশন ভ্যান প্রত্যন্ত অঞ্চলে বসবাসকারী আফগান শরণার্থীদের খুঁজে বের করে সেখানে রেজিস্ট্রেশন করে ।

তিনি বলেন, আফগান শরণার্থীদের কাছে প্রচারণার উদ্দেশ্য ব্যাখ্যা করার জন্য একটি গণ তথ্য প্রচারও চালানো হয়েছিল। তিনি বলেছেন যে এই প্রচেষ্টাটির ফলে বিপুল সংখ্যক শরণার্থীর রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন করা সম্ভব হয়েছে।

এদের মধ্যে উদ্বাস্তু বাবা-মায়ের দ্বারা পাঁচ বছরের কম বয়সী ২,০০,০০০ শিশু নিবন্ধিত হয়েছে। বেলুচ বলেন, "এখন পর্যন্ত ৭,০০,০০০ এরও বেশি নতুন স্মার্ট পরিচয়পত্র ইস্যু করা হয়েছে৷ বাকি কার্ডগুলি ২০২২ সালের শুরুর দিকে মুদ্রণ এবং বিতরণ করা হবে। এই কার্ডগুলির বৈধতা হচ্ছে ২০২৩ সালের ৩০ জুন পর্যন্ত ।”

XS
SM
MD
LG