অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মানবতা বিরোধী অপরাধে জার্মান আদালতে সিরিয়ার সাবেক গোয়েন্দা কর্মকর্তা দোষী সাব্যস্ত  


১৩ জানুয়ারী, ২০২২ জার্মানির একটি আদালত সিরিয়ার এক প্রাক্তন গোয়েন্দা পুলিশ কর্মকর্তাকে মানবতার বিরুদ্ধে অপরাধের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করার পর আদালতের সামনে সিরিয়ার নারীরা

জার্মান আদালতের যুগান্তকারী এক রায়ে বৃহস্পতিবার সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদ সরকারের অধীনে রাষ্ট্রীয় পৃষ্ঠপোষকতায় নির্যাতন ও হত্যার ঘটনায় জড়িত সিরিয়ার এক সাবেক গোয়েন্দা কর্মকর্তাকে মানবতা বিরোধী অপরাধের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করেছে।

জার্মানীর পশ্চিমাঞ্চলের শহর কোবলেঞ্জের একটি স্থানীয় আদালত ৫৮ বছর বয়সী আনোয়ার রাসলানকে দোষী সাব্যস্ত করেছে।। ২০১১ এবং ২০১২ সালে দামেস্কের আল-খাতিব কারাগারে আটক ২৭ জনকে তার তত্ত্বাবধানে হত্যা করা হয়েছিল। ঐ জেলখানাটি ব্রাঞ্চ 251 নামেও পরিচিত।

রাসলান সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

রাসলান এবং আরেক আসামি জুনিয়র কর্মকর্তা ইয়াদ আল-ঘারিবকে ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে বিচারের মুখোমুখি করা হয়। ঘারিবের বিরুদ্ধে বিক্ষোভকারীদের গ্রেপ্তার করতে সাহায্য করা এবং কারাগারে তাদের পৌঁছে দিতে সহায়তা করার জন্য অভিযোগ আনা হয়েছিল। গত বছর তাকে সাড়ে চার বছরের কারাদণ্ড দেওয়া হয়।

২০১১ সালে সিরিয়ার গৃহযুদ্ধের শুরু থেকে রাষ্ট্রের দ্বারা নির্যাতনের জন্য এদের বিচারই হচ্ছে প্রথম বিচার।

রাসলান এবং অন্যান্য মামলা সিরিয়া থেকে হেগের আন্তর্জাতিক ফৌজদারি আদালতে পাঠানোর জন্য জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের চেষ্টা কিন্তু সিরিয়ার প্রধান মিত্র রাশিয়া ও চীন প্রতিহত করে। জার্মান আদালত গুরুতর অপরাধের জন্য সর্বজনীন এখতিয়ারের অধীনে ঐ দুই ব্যক্তির বিচার করে।

মানবাধিকার কর্মীরা আশা করেন যে এই বিচার একটি নতুন দৃষ্টান্ত স্থাপন করবে। হিউম্যান রাইটস ওয়াচের নির্বাহী পরিচালক কেনেথ রথ ফরাসি সংবাদ সংস্থা এএফপিকে বলেন, এই রায় ঐতিহাসিক। তিনি আশা প্রকাশ করেন, এই বিচার বিশ্বের বিভিন্ন দেশকে যুদ্ধাপরাধ এবং তাদের নিজেদের দেশে গণনিপীড়নের জন্য সন্দেহভাজনদের বিচার করার সুযোগ করে দেবে।

[এই প্রতিবেদনের কিছু তথ্য এপি, রয়টার্স এবং এএফপি সরবরাহ করেছে]

XS
SM
MD
LG