অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেন বিষয়ক উত্তেজনা: প্যারিস আলোচনায় রাশিয়া ইউক্রেনের কর্মকর্তাদের যোগদান


পূর্ব ইউক্রেনের ডোনেটস্ক অঞ্চলের ইয়াসিনুভাটা জেলার ভার্খ নটোরেটস্কে রাশিয়া সমর্থিত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের গ্রামের ফ্রন্টলাইনের কাছাকাছি একটি রাস্তায় টহল দিচ্ছেন একজন ইউক্রেনীয় সেনাকর্মী৷ 22শে জানুয়ারী, 2022,ছবি- এপি

রাশিয়া-ইউক্রেন সীমান্তে উত্তেজনার মধ্যে বুধবার প্যারিসে রাশিয়া, ইউক্রেন, জার্মানি এবং ফ্রান্সের কর্মকর্তারা আলোচনা করছেন।

পশ্চিমা দেশগুলো ওই এলাকায় এক লাখেরও বেশি রুশ সেনা মোতায়েন এবং ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের সম্ভাবনা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে। রাশিয়া এই ধরনের পরিকল্পনা অস্বীকার করেছে এবং নিশ্চয়তা চেয়েছে যে উত্তর আটলান্টিক চুক্তি সংস্থা রাশিয়ার দিকে সম্প্রসারিত হবে না।

রাশিয়ার প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র দ্যমিত্রি পেসকভ বুধবার সংবাদদাতাদের বলেছেন, তিনি আশা করেন, প্যারিস বৈঠকে ভাল, খোলামেলা আলোচনার মাধ্যমে সম্ভাব্য সর্বোচ্চ ফলাফল আসবে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কির চিফ অফ স্টাফ অ্যান্ড্রি ইয়ারমাক বুধবার টুইট করেছেন যে তিনি ইউক্রেনের স্বার্থে একটি "গঠনমূলক সংলাপ" আশা করেন।

গত সপ্তাহে রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, নেটো এবং ইউরোপের নিরাপত্তা ও সহযোগিতা সংস্থার মধ্যে কয়েক দফা আলোচনার পর এই বৈঠক হয়।

রাশিয়া তার কিছু দাবির লিখিত প্রতিক্রিয়ার জন্য অপেক্ষা করছে। রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বুধবার আইন প্রণেতাদের বলেছেন যে পশ্চিমারা যাকে তিনি বলছেন "আক্রমনাত্মক পথ" তা অব্যাহত রাখলে রাশিয়া "প্রয়োজনীয় প্রতিশোধমূলক ব্যবস্থা" নেবে।

বুধবারের আলোচনা এমন এক সময় হচ্ছে যখন রাশিয়া বলেছে যে তারা বেলারুশে আরও সৈন্য ও সরঞ্জাম পাঠাচ্ছে কারণ এই দুটি দেশ আগামী মাসে সামরিক মহড়ার প্রস্তুতি নিচ্ছে।

পেসকভ আরো বলেন, রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হলে তার ফলাফল হবে বিপরীতমুখী।

তিনি বুধবার সাংবাদদাতাদের বলেছেন, "রাজনৈতিকভাবে, এটি বেদনাদায়ক নয়, এটি ধ্বংসাত্মক"।

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন মঙ্গলবার বলেছেন যে রাশিয়া যদি ইউক্রেন আক্রমণ করে তবে পুতিন নিজেও অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা সহ "গুরুতর পরিণতির" মুখোমুখি হবেন।

[এই প্রতিবেদনের জন্য কিছু তথ্য এপি, এএফপি এবং রয়টার্স থেকে নেয়া হয়েছে]

XS
SM
MD
LG