অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

র‍্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞা- যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ


ফাইল ছবি- বাংলাদেশের র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব) সদস্যরা প্রধান বিরোধী দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি) এর কার্যালয় পাহারা দিচ্ছে। ২৬ নভেম্বর ২০১৩।

র‍্যাব ও এর সাবেক এবং বর্তমান ৭ কর্মকর্তার ওপর যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া নিষেধাজ্ঞা
ইস্যুতে যুক্তরাষ্ট্রের আদালতে আইনি প্রক্রিয়ার গ্রহণের প্রস্তুতি নিচ্ছে বাংলাদেশ।এ বিষয়ে চলতি সপ্তাহেই সরকারের সিদ্ধান্ত জানা যাবে। পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম মঙ্গলবার এ তথ্য প্রকাশ করেছেন। নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি বলেন, নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে মামলা করা হবে কিনা এ সপ্তাহেই সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এ বিষয়ে যুক্তরাষ্ট্রে তিনটি আইনি প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সরকার যোগাযোগ করছে। তিনি বলেন, সেখানে আমাদের হয়ে কথা বলার জন্য বা মামলায় লড়ার জন্য প্রতিনিধি নিয়োগের বিষয়ে আমরা চূড়ান্ত পর্যায়ে আছি।
র‍্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে তৃতীয় কোনো দেশের সহায়তা নেয়ার কোনো
পরিকল্পনা নেই বলেও জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী। তিনি বলেন, বাংলাদেশের যথেষ্ট
সক্ষমতা রয়েছে- আইনি হোক বা কূটনৈতিক দিক দিয়ে হোক। এখানে আমরা তৃতীয় কোনো রাষ্ট্রকে সম্পৃক্ত করতে চাই না।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, এ ইস্যুতে আইনি এবং কূটনৈতিক দুই প্রচেষ্টাই
অব্যাহত থাকবে। র‍্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে যুক্তরাষ্ট্রের কাছে পাঠানো চিঠির জবাব এসেছে। তবে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে যুক্তরাষ্ট্রের প্রশাসন আরো সময় চেয়েছে।প্রতিমন্ত্রী বলেন, র‍্যাবের ওপর নিষেধাজ্ঞার কারণে বাংলাদেশ- যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কে অস্বস্তি তৈরি হলেও তার প্রভাব দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কে যেন না পড়ে সে লক্ষ্যে কাজ চলছে।

এপ্রিল এবং মে মাসে যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে দুটি আলোচনার সূচি আছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী জানান, সচিব পর্যায়ের এবং ব্যবসায়ী পর্যায়ের এই আলোচনা সম্পর্ক উন্নয়নে ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মনে করেন।

আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের (র‍্যাব) সাবেক ও বর্তমান ৭ কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে যুক্তরাষ্ট্র। পৃথকভাবে এ নিষেধাজ্ঞা দেয় যুক্তরাষ্ট্রের ট্রেজারি

ডিপার্টমেন্ট ও পররাষ্ট্র দপ্তর। নিষেধাজ্ঞার আওতায় আসা কর্মকর্তাদের মধ্যে র‍্যাবের সাবেক মহাপরিচালক ও পুলিশের বর্তমান আইজি ড. বেনজীর আহমেদ, র‍্যাবের বর্তমান মহাপরিচালক চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল মামুন, অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) খান মোহাম্মদ আজাদ, সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) তোফায়েল মোস্তফা সরোয়ার, সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) মো. জাহাঙ্গীর আলম ও সাবেক অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশন্স) মো. আনোয়ার লতিফ খান, র‍্যাব৭ এর সাবেক অধিনায়ক মিফতাহ উদ্দীন আহমেদ রয়েছেন।

এই নিষেধাজ্ঞা আরোপের পর ঢাকায় ব্যাপক প্রতিক্রিয়া দেখা দেয়। পররাষ্ট্র
মন্ত্রণালয়ে ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্রের দূতকে তলব করে অসন্তোষ প্রকাশ করা হয়। পরে
নিষেধাজ্ঞা পুনর্বিবেচনার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেনকে অনুরোধ জানিয়ে চিঠি দেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। নিষেধাজ্ঞা উঠাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে প্রয়োজনে যুক্তরাষ্ট্রে সরকারের পক্ষ থেকে লবিস্ট নিয়োগের পরামর্শ দেয় পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সংক্রান্ত সংসদীয় কমিটি। কমিটির তরফে আইনি প্রক্রিয়া চালানোরও পরামর্শ দেয়া হয়।

XS
SM
MD
LG