অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

রাশিয়ার উপরে নিষেধাজ্ঞায় যোগ দেবে দক্ষিণ কোরিয়া কিন্তু নিজেরা নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে না


২৪শে ফেব্রুয়ারি ২০২২ দক্ষিণ কোরিয়ার সোওল রেলওয়ে স্টেশনে লোকজন টিভিতে ইউক্রেন সংকট বিষয়ে একটি একটি সংবাদ দেখছে

দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা শুক্রবার পুনর্ব্যক্ত করেছেন যে তারা রাশিয়ার রপ্তানির উপরে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় নিষেধাজ্ঞা বাস্তবায়ন করবেন তবে সোওল রাশিয়ার উপরে সরাসরি নিষেধাজ্ঞা আরোপ করবে না। ইউক্রেনে রাশিয়ার

আগ্রাসনের প্রতিক্রিয়ায় এই সপ্তাহে এই নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার পররাষ্ট্র মন্ত্রক শুক্রবার একটি টুইটার পোস্টে জানিয়েছে, "আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের দায়িত্বশীল সদস্য হিসাবে কোরিয়ান সরকার রাশিয়ার সশস্ত্র আগ্রাসন রোধ করতে এবং শান্তিপূর্ণভাবে পরিস্থিতি সমাধানের জন্য

অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞাসহ অন্যান্য প্রচেষ্টাকে সমর্থন করবে এবং তাতে যোগ দিবে।" এর একদিন আগে প্রেসিডেন্ট মুন জায় ইনের যুদ্ধ নয় সংলাপ ও আলোচনার মাধ্যমে একটি সমাধানের পক্ষে যুক্তি দিয়ে যে মন্তব্য করেছিলেন তারই প্রতিধ্বণি শোনা গেল পররাষ্ট্র মন্ত্রকের এই মন্তব্যেও।

আমেরিকার বাণিজ্য বিভাগ সর্বসাম্প্রতিক যে রপ্তানি নিয়ন্ত্রণ বিধি ঘোষণা করেছে তার ফলে দক্ষিণ কোরিয়া রাশিয়ায় যে প্রধানত সেমিকন্ডাক্টর, ইলেকট্রনিক্স এবং অটোমোবাইলস রপ্তানি করে থাকে তার উপরে এর প্রভাব পড়তে পারে। দক্ষিণ কোরিয়ার যে সব কোম্পানি সেমিকন্ডাক্টর, কম্পিউটার এবং বিমানের যন্ত্রাংশের মতো পণ্য তৈরি করতে আমেরিকার মূল প্রযুক্তি ব্যবহার করে ঐ সব কোম্পানিকে রাশিয়ায় পণ্য পাঠানোর আগে ওয়াশিংটনের অনুমোদন পেতে হবে।

জাপান এবং অস্ট্রেলিয়াসহ কয়েকটি এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশ রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা আরোপের ঘোষণা দিলেও দক্ষিণ কোরিয়া বলেছে, আপাতত এখন তাদের এ ধরণের কোনো পরিকল্পনা নেই।

প্রেসিডেন্টের মুখপাত্র পার্ক সো-হিউন শুক্রবার এক রেডিও সাক্ষাত্কারে বলেন, "আমরা যা বলছি তা হ'ল, যুক্তরাষ্ট্র এবং ইউরোপীয় দেশগুলির জারি করা নিষেধাজ্ঞাগুলি আমরা স্বাভাবিকভাবেই মেনে চলব।”

তিনি বলেন, “আমাদের এটাও মনে রাখতে হবে যে রাশিয়ার সঙ্গে আমাদের বানিজ্যিক সম্পর্ক বৃদ্ধি পাচ্ছে।”

নাম প্রকাশ না করার শর্তে বুধবার প্রেসিডেন্টের একজন কর্মকর্তা সাংবাদিকদের বলেন, তাদের একাধিক বিকল্প পরিকল্পনা রয়েছে এবং সোওলের অবস্থান নির্ভর করতে পারে সংকটের সময়ের উপর, সংকট কোন দিকে মোড় নিচ্ছে এবং অন্যান্যদেশের প্রতিক্রিয়ার উপর।

জাপান শুক্রবার সেমিকন্ডাক্টর এবং অন্যান্য উচ্চ-প্রযুক্তি সম্পন্ন পণ্যগুলি অন্তর্ভুক্ত করার পাশাপাশি রাশিয়ান ব্যাংকগুলির সম্পদের উপর নিষেধাজ্ঞা বাড়ানোর ফলে সোওলের অবস্থান জাপানের বিপরীতে দাঁড়ালো এর আগে এই সপ্তাহের শুরুতে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন তথাকথিত ডনেটস্ক এবং লুহান্স পিপলস রিপাবলিককে দিলে জাপান সেখানকার লোকজনের জন্য নতুন ভ্রমণ পারমিট নিষিদ্ধ করে দেয়।

XS
SM
MD
LG