অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

উন্মুক্ত পদ্ধতিতে কয়লা উত্তোলন বাংলাদেশের জন্য আত্মঘাতী—প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা


কয়লা উত্তোলন

উন্মুক্ত পদ্ধতিতে খনি থেকে কয়লা উত্তোলন বাংলাদেশের জন্য আত্মঘাতী হবে বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর জ্বালানি উপদেষ্টা ড. তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী।

তিনি বলেন, “ওপেন পিট মাইনিং শুধুমাত্র দেশের বৃহৎ জলাভূমিকে প্রভাবিত করবে না, আমাদের মূল্যবান জমির ওপরের মাটিও ধ্বংস করবে।”

শনিবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) “টেকসই জ্বালানি নিরাপত্তার জন্য উপযুক্ত জ্বালানি মিশ্রণ-বাংলাদেশ পরিপ্রেক্ষিত” শীর্ষক এক ওয়েবিনারে বক্তব্য দিতে গিয়ে তিনি এ মন্তব্য করেন।

তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী দেশে কোনো উন্মুক্ত খনির অনুমতি না দেওয়ার বিষয়ে সরকারের অবস্থানকে সমর্থন করেন। যদিও কিছু বক্তা বিদ্যুৎ উৎপাদনে কয়লার ব্যবহারের পক্ষে মত দিয়েছেন।

এ সময় পরিবেশ রক্ষায় ৮ হাজার ৪৫১ মেগাওয়াট ক্ষমতাসম্পন্ন ১০টি কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্র বাতিলে সরকারের সিদ্ধান্তকে সঠিক সিদ্ধান্ত বলে মন্তব্য করেন তৌফিক-ই-এলাহী চৌধুরী।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য দেন জ্বালানি সচিব মাহবুব হোসেন, বাংলাদেশ পাওয়ার ডেভেলপমেন্ট বোর্ডের (বিপিডিবি) চেয়ারম্যান মাহবুবুর রহমান ও বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) প্রকৌশল অনুষদের ডিন ড. মোহাম্মদ তামিম।

মাহবুব হোসেন বলেন, “বৈশ্বিক বাজারের অস্থির পরিস্থিতিতে দেশের জ্বালানি খাত বিভিন্ন চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করছে।”

মাহবুবুর রহমান বলেন, “তরল জ্বালানিভিত্তিক বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো সবচেয়ে ব্যয়বহুল বিদ্যুৎ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠান, যেখানে মোট উৎপাদন ব্যয়ের ৩৪ শতাংশ ব্যয় হয়।”

তিনি আরও বলেন, “অনেক প্রচেষ্টা সত্ত্বেও, বিপিডিবির পক্ষে এই বিদ্যুৎকেন্দ্রগুলো বন্ধ করা সম্ভব হয়নি।”

XS
SM
MD
LG