অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সমঝোতার মাধ্যমে ইরান থেকে মুক্তিপ্রাপ্ত ব্রিটেনের দুই নাগরিকের প্রত্যাবর্তন


ইংল্যান্ডের বিমান বন্দরে বিমান থেকে নামছেন নাজানিন জাঘারি-র‍্যাটক্লিফ এবং আনুশেহ আশুরী। মার্চ ১৭ ২০২২। (ছবি- এপি)

ব্রিটেনের দুইজন নাগরিক পাঁচ বছরেরও অধিক সময় ইরানে কারাবন্দী থাকার পর, বৃহস্পতিবার তাদের পরিবারের কাছে ফেরত এসেছেন। এই দুইজন হলেন দাতব্য সংস্থার কর্মী নাজানিন জাঘারি-র‌্যাটক্লিফ এবং অবসরপ্রাপ্ত নির্মাণ প্রকৌশলী আনুশেহ আশুরী। ব্রিটেন কয়েক দশক আগের একটি দেনা ইরানকে পরিশোধ করলে, এই দুইজনকে মুক্তি দেওয়া হয়। ভোরবেলা অক্সফোর্ডশায়ারের ব্রাইজ নরটন বিমানঘাঁটিতে তাদেরকে বহনকারী সরকারী বিশেষ ফ্লাইটটি পৌঁছায়। বিমানবন্দরে পৌঁছানোর পর জাঘারি-র‌্যাটক্লিফ তার ৭ বছর বয়সী কন্যা সন্তানকে জড়িয়ে ধরেন এবং তার স্বামী ও আশুরী পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা কান্নাভেজা চোখে একে অপরকে আলিঙ্গন করেন।

ব্রিটেনের সরকার জানিয়েছে যে একই সমঝোতার আওতায়, মোরাদ তাহবাজ নামের তৃতীয় আরেক ব্যক্তিকে কারাগার থেকে লম্বা ছুটিতে মুক্তি প্রদান করা হয়। তাহবাজ যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন এবং ইরানের নাগরিক।

জাঘারী-র‌্যাটক্লিফ এবং আশুরীর মুক্তি এমন সময়ে আসল যখন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রিটেন ও অন্যান্য দেশগুলো, ইরানে কারাবন্দী অবস্থায় থাকা কয়েক ডজন দ্বৈত-নাগরিকের মুক্তি নিশ্চিতের বিষয়ে চেষ্টা করছে। ইরান ঐ ব্যক্তিদের অন্য দেশের নাগরিকত্ব গ্রহণের অধিকারটি স্বীকার করে না। পশ্চিমা দেশগুলো থেকে সুবিধা আদায়ের জন্য ভুয়া অভিযোগের ভিত্তিতে ঐ সব দ্বৈত নাগরিকদের গ্রেফতার করা হয়েছে বলে ইরানের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে ঐসব ব্যক্তিদের পরিবারের সদস্যবৃন্দ এবং মানবাধিকার কর্মীরা।

মুক্তিপ্রাপ্ত দ্বৈত-নাগরিকদের কারামুক্তিটি ব্যাপক কূটনৈতিক প্রচেষ্টার ফলে সম্ভব হয়েছে। এমন প্রচেষ্টার ফলে, দেনা পরিশোধের বিষয়ে এমন সমঝোতায় আসা সম্ভব হয়, যেভাবে ব্রিটেনের এবং আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞার সাথে সংগতি রেখে দেনা পরিশোধ করা সম্ভব হয়। ইরানকে ৩৯ কোটি ৩৮ লক্ষ পাউন্ড (৫১ কোটি ৫৫ লক্ষ ডলার) পরিশোধ করতে সম্মত হয়েছে ব্রিটেন। তবে, এই অর্থ শুধুমাত্র মানবিক কারণেই ব্যবহার করা যাবে। সমঝোতাটির বিষয়ে বিস্তারিত কিছু জানাতে অস্বীকৃতি জানিয়েছে ব্রিটেন সরকার।

XS
SM
MD
LG