অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

মারিউপোল ইস্পাত কারখানায় আবার হামলা শুরু করেছে রাশিয়া


ইউক্রেনের দক্ষিণ বন্দর নগরী মারিউপোলে ইউক্রেন ও রাশিয়ার মধ্যে যুদ্ধ চলাকালে আজভস্টাল আয়রন অ্যান্ড স্টিল কারখানার একটি প্ল্যান্টের ওপরে ধোঁয়ার কুণ্ডলি সৃষ্টি হয়। এ সময় লোকজন তাদের সাইকেল নিয়ে রাস্তা দিয়ে হেঁটে যাচ্ছেন। ২ মে ২০২২।

রাশিয়া মঙ্গলবার (৩ মে) ইউক্রেনের দক্ষিণের অবরুদ্ধ বন্দর শহর মারিউপোলে নতুন করে গোলাবর্ষণ শুরু করেছে। প্রায় ২০০ জন বেসামরিক নাগরিক আজভস্টাল ইস্পাত কারখানায় আটকা পড়েছেন বলা জানা গেছে। যদিও এর আগে জাতিসংঘ জানিয়েছিল, ১০১ জনকে কারখানা থেকে নিরাপদে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।

রাশিয়ার আরআইএ বার্তা সংস্থা দেশটির প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, জাতিসংঘের মধ্যস্থতায় চলমান যুদ্ধবিরতির “সুযোগ নিয়ে” কিয়েভের সেনারা নতুন ঘাঁটি তৈরি করায় রুশ সেনারা হামলার জন্য ব্যবহৃত ওই ঘাঁটিগুলো ধ্বংস করছে। যুদ্ধবিরতির মধ্যে গত কয়েক দিনে বেসামরিক লোকদের একটি দলকে সরিয়ে নেওয়ার প্রক্রিয়া চলছিল।

একজন পুলিশ কর্মকর্তা সরকারি বার্তা সংস্থা সাসপাইনকে বলেছেন যে, রুশ বাহিনী গোলকধাঁধার মতো সুড়ঙ্গ ও বাংকারসমৃদ্ধ কারখানাটি নিয়ন্ত্রণে নেওয়ার চেষ্টা করছে। এটি মারিউপোলে ইউক্রেনীয়দের দখলে থাকা সর্বশেষ স্থাপনা। ইস্পাত কারখানায় আটকে থাকা আজভ রেজিমেন্টের একজন ডেপুটি কমান্ডার বলেছেন, রুশ বিমান রাতভর কারখানার ওপর বোমাবর্ষণ করেছে।

রাশিয়া ইতোমধ্যে পূর্ব ও দক্ষিণ ইউক্রেনের অন্য অঞ্চলে উন্নত পশ্চিমা সামরিক সরঞ্জাম লক্ষ্য করে হামলা শুরু করেছে। ইউক্রেনের বিরুদ্ধে রাশিয়ার ১০ সপ্তাহ ধরে চলা যুদ্ধে কিয়েভকে সাহায্য করতে যুক্তরাষ্ট্র ও তার মিত্ররা সেগুলো পাঠিয়েছিল।

ইউক্রেন বিষয়ে জাতিসংঘের মানবিক সমন্বয়কারী ওসনাত লুবরানি বলেছেন, বয়স্ক পুরুষ, নারী ও শিশুসহ ১০১ জন বেসামরিক ব্যক্তিকে আজভস্টাল কারখানা থেকে সরিয়ে নিতে পেরে এবং মারিউপোলের উপকণ্ঠে শহর মানহুশে আরও ৫৮ জনকে তাদের সঙ্গে একত্রিত করতে পেরে তিনি “সন্তুষ্টি ও স্বস্তি পেয়েছেন”।

জাতিসংঘের এই কর্মকর্তা বলেন, ১২৭ জনকে মারিউপোল থেকে প্রায় ২৩০ কিলোমিটার উত্তর-পশ্চিমে ইউক্রেনীয়-নিয়ন্ত্রিত শহর জাপোরিঝিয়ায় নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে তাদেরকে প্রাথমিক মানবিক সহায়তা ও স্বাস্থ্যসেবা দেওয়া হছে।

চলমান যুদ্ধ পরিস্থিতিতে ইউরোপীয় কমিশন মস্কোকে আর্থিকভাবে চাপে রাখতে রাশিয়া থেকে তেল আমদানিতে নিষেধাজ্ঞা চূড়ান্ত করতে যাচ্ছে।

মারিউপোলের মেয়র বলেছেন যে, প্রায় ১ লাখ লোক শহরে রয়ে গেছেন, যার মধ্যে ২ হাজার ইউক্রেনীয় সেনা ইস্পাত কারখানায় অবস্থান করছেন।

ইউক্রেনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী দিমিত্রো কুলেবা সোমবার বলেছেন, ইউক্রেন সরকার কারখানায় লুকিয়ে থাকা সেনাদের সরিয়ে নিতে আলোচনার জন্য কাজ করছেন।

রাশিয়ার সামরিক বাহিনী সোমবার বলেছে, ইস্পাত কারখানা থেকে বেরিয়ে আসা ৬৯ জন ইউক্রেন নিয়ন্ত্রিত অঞ্চলে সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, বাকি ৫৭ জন রাশিয়া নিয়ন্ত্রিত এলাকায় থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

এর আগে ইউক্রেন রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইউক্রেনীয়দের জোর করে রাশিয়ায় নিয়ে যাওয়ার অভিযোগ তুলেছিল, যদিও মস্কো ওই অভিযোগ অস্বীকার করেছে।

জেলেন্সকি সোমবার গ্রিক রাষ্ট্রীয় টেলিভিশনকে বলেছেন যে, ইস্পাত কারখানা থেকে বের হওয়া অবশিষ্ট বেসামরিক ব্যক্তিরা বাসে চড়তে ভয় পাচ্ছিলেন, তারা ভেবেছিলেন তাদের রাশিয়ায় নিয়ে যাওয়া হবে।

[ভয়েস অফ আমেরিকার জেফ সেলডিন এই প্রতিবেদনে সহায়তা করেছেন। কিছু তথ্য দ্য অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস, এজেন্সি ফ্রান্স-প্রেস ও রয়টার্স থেকে নেওয়া হয়েছে]

XS
SM
MD
LG