অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনকে বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাস্ত্র দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে জার্মানি


(ফাইল) – জার্মানির এয়ার ফোর্সের টেকনিক্যাল সার্জেন্টরা ফাইটার উইং ৭৩ এয়ারফোর্স ঘাঁটিতে একটি ইউরোফাইটার বিমানে একটি নতুন এয়ার-টু-এয়ার মিসাইল আইআরআইএস-টি (ইনফ্রারেড ইমেজিং সিস্টেম - টেইল/থ্রাস্ট ভেক্টর কন্ট্রোলড) সংযুক্ত করছে। ৫ ডিসেম্বর, ২০০৫।

জার্মান চ্যান্সেলর ওলাফ শোলজ ইউক্রেনে উচ্চ প্রযুক্তির বিমান বিধ্বংসী সিস্টেম পাঠানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। বিনা উস্কানিতে রাশিয়ার আক্রমণের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে জার্মানি যথেষ্ট সামরিক সহায়তা প্রদান করেনি, দেশটির বিরোধী সদস্যদের সমালোচনার জবাবেই এই সিদ্ধান্ত নিলেন শোলজ৷

বুধবার বার্লিনে আইনপ্রণেতাদের সাথে কথা বলার সময় শোলজ বলেন, রাশিয়া পূর্ব ইউক্রেনে লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হানতে থাকায়, আইআরআইএস-টি ক্ষেপণাস্ত্র এবং রাডার সিস্টেমগুলিকে কিয়েভে পাঠানোর প্রস্তাব অনুমোদন করেছে তাঁর সরকার।

শোলজ আরও বলেন, আমাদের লক্ষ্য রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন ইউক্রেনে যে যুদ্ধ শুরু করেছেন সেই যুদ্ধে তিনি যাতে "জিততে না পারেন" তা নিশ্চিত করা।

তিনি আরো বলেন, "আমরা চাই, ইউক্রেন আত্মরক্ষা করতে সক্ষম এবং সফল হবে।"

ওয়াশিংটন ইউক্রেনকে উন্নত রকেট সিস্টেম সরবরাহ করবে, যা ৮০ কিলোমিটার দূরের লক্ষ্যবস্তুতে নির্ভুলভাবে আঘাত হানতে পারে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের এমন ঘোষণা দেয়ার কয়েক ঘণ্টা পর, শোলসের এই ঘোষণা এলো।

হিমার্স নামে পরিচিত রকেট সিস্টেমটি,রাশিয়ার গোলন্দাজ বাহিনীকে আটকাতে এবং সিভিয়েরোডোনেটস্ক এর মতো শহরগুলিতে যেখানে প্রচন্ড লড়াই চলছে, সেখানে রাশিয়ার অবস্থানগুলির উপর আঘাত হানতে ব্যবহার করা যেতে পারে।

কিছু তথ্য রয়টার্স থেকে নেয়া।

XS
SM
MD
LG