অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দলীয় সভায় অস্ত্রসম্ভার বৃদ্ধি আবারও নিশ্চিত করলেন উত্তর কোরিয়ার নেতা


উত্তর কোরিয়ার সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি কর্তৃক ১১ জুন ২০২২ তারিখে প্রকাশিত তারিখবিহীন এই ছবিতে, উত্তর কোরিয়ার রাজধানী পিয়ংইয়ং-এ কোরিয়ার ওয়ার্কার্স পার্টির অষ্টম কেন্দ্রীয় কমিটির পঞ্চম বৃহত্তর প্লেনারি সভা পরিচালনা করতে দেখা যাচ্ছে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন-কে।

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন তার দেশের অস্ত্রসম্ভার বৃদ্ধি জোরদার করেছেন। তার ভাষ্যমতে উত্তেজনাকর নিরাপত্তা পরিবেশের সম্মুখীন হয়ে এমনটি করা হচ্ছে। এক গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক সম্মেলনের সমাপনী বক্তব্যে এমন মন্তব্য করেন কিম। মন্তব্যগুলো এমন সময়ে করা হল, যখন কিনা যুক্তরাষ্ট্র এবং দক্ষিণ কোরিয়ার কর্মকর্তারা বলছেন যে, উত্তর কোরিয়া আরেকটি পারমাণবিক পরীক্ষার প্রস্তুতি গ্রহণ করছে এবং এমন পরীক্ষা শীঘ্রই হতে পারে।

উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রপরিচালিত কোরিয়ান সেন্ট্রাল নিউজ এজেন্সি (কেসিএনএ) শনিবার কিমের মন্তব্যগুলো প্রকাশ করে। তবে শুক্রবার সমাপ্ত হওয়া তিনদিনব্যাপী আলোচনায় যুক্তরাষ্ট্র বা প্রতিপক্ষ দক্ষিণ কোরিয়ার সরাসরি কোন সমালোচনা করা হয়নি। পরমাণু বিষয়ক কূটনীতি দীর্ঘদিন ধরে এক অচলাবস্থায় আটকে রয়েছে।

অস্ত্র উন্নয়ন ত্বরান্বিত করাকে নিজেদের প্রতিরক্ষার সার্বভৌম অধিকারের চর্চা হিসেবে ব্যাখ্যা করেছেন কিম। একই সাথে তিনি আরও “সামরিক কর্মকাণ্ড” নির্ধারণ করেন, যেগুলো তার সামরিক বাহিনী এবং সামরিক বিজ্ঞানীদের অর্জনের চেষ্টা করতে হবে বলে, সংবাদ সংস্থাটি জানায়। তবে, প্রতিবেদনে পারমাণবিক বিস্ফোরণের বিষয়টিসহ পরীক্ষা কার্যক্রমের সম্পর্কিত কোন নির্দিষ্ট লক্ষ্য বা পরিকল্পনা উল্লেখ করা হয়নি।

অনেক বছর ধরেই উত্তর কোরিয়া অস্ত্র পরীক্ষা এবং হুমকির মাধ্যমে কূটনৈতিক সংকট তৈরির কৌশলে অত্যন্ত দক্ষ হয়ে উঠেছে। তবে, অবশেষে আলোচনার প্রস্তাব দিয়ে এমন সংকট থেকে তারা কিছুটা ফায়দা নেওয়ার চেষ্টা করে থাকে।

এদিকে, ভবিষ্যৎ পররাষ্ট্রনীতিতে প্রভাব ফেলতে পারে এমন এক পদক্ষেপ নিয়েছেন কিম। ঐ বৈঠক চলাকালে, যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্কিত বিষয়াদি সামাল দেওয়ার ব্যাপারে ব্যাপক অভিজ্ঞতাসম্পন্ন এক ঊর্ধ্বতন কূটনীতিককে কিম তার নতুন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন।


XS
SM
MD
LG