অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সিভিরোডনেটস্কে তুমুল লড়াই চলছে


পোকরভস্কে একটি উদ্ধারকারি ট্রেনের ভেতর এক বয়স্ক নারী বসে আছেন। তাকে যুদ্ধ আক্রান্ত এলাকা থেকে সরিয়ে নেয়া হয়। ২০ জুন, ২০২২।

মঙ্গলবার ইউক্রেন সিভিরোনেটস্ক অঞ্চলে তীব্র হামলার সংবাদ দিয়েছে। রুশ বাহিনী পূর্বের এই শহরটির সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণ নেয়ার জন্য চাপ দিচ্ছে।

ইউক্রেনের সশস্ত্র বাহিনীর জেনারেল স্টাফের একজন মুখপাত্র এক দৈনিক ব্রিফিং-এ বলেছেন, সিভিরোডনেটস্কে মারাত্মক যুদ্ধ হয়েছে, রাশিয়া ইউক্রেনের অবস্থানগুলোতে বিমান হামলা এবং গোলাবর্ষণ উভয়ই পরিচালনা করেছে।

লুহানস্কের গভর্নর সের্হি হাইদাই সিভিরোডনেটস্কের আজোট রাসায়নিক স্থাপনায় ব্যাপক লড়াইয়ের কথা জানিয়েছেন। সেখানে ইউক্রেনীয় যোদ্ধারা এবং প্রায় ৫০০ জন বেসামরিক মানুষ আশ্রয় নিয়েছে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি দেশের পূর্বাঞ্চল রক্ষার চেষ্টায় অসুবিধার কথা স্বীকার করেছেন তবে বলেছেন, রুশ বাহিনী ইউক্রেনের প্রতিরোধের সাথে মোকাবিলা করতে থাকবে।

এর আগে সোমবার জেলেন্সকি গম সরবরাহে বাধা দিয়ে আফ্রিকাকে “জিম্মি” রাখার এবং আফ্রিকা মহাদেশে খাদ্যের দাম বৃদ্ধিতে ভূমিকা রাখার দায়ে রাশিয়াকে অভিযুক্ত করেছিলেন।

ইউক্রেন থেকে গম রপ্তানিতে বাধা দেয়ার ব্যাপারটি রাশিয়া অস্বীকার করেছে এবং বিশ্বব্যাপী খাদ্যের মূল্য বৃদ্ধির জন্য পশ্চিমা দেশগুলোর আরোপিত নিষেধাজ্ঞাকে দায়ী করেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র নীতির প্রধান জোসেপ বোরেল রাশিয়ার পদক্ষেপকে “সত্যিকারের যুদ্ধাপরাধ” বলে অভিহিত করেছেন। সোমবার তিনি লুক্সেমবার্গে জড়ো হওয়া ইইউ-র শীর্ষ কূটনীতিকদের বলেন, “এটা অকল্পনীয়, কেউ কল্পনাও করতে পারে না যে ইউক্রেনে লাখ লাখ টন গম অবরুদ্ধ থাকা অবস্থায় বাকি বিশ্বের মানুষ ক্ষুধায় ভুগছে।”

এছাড়াও সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের অর্থমন্ত্রী জ্যানেট ইয়েলেন এবং কানাডার অর্থমন্ত্রী ক্রিস্টিয়া ফ্রিল্যান্ড রাশিয়ার বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা এবং অর্থনৈতিক চাপ বাড়ানোর অন্যান্য উপায় নিয়ে আলোচনা করতে টরন্টোতে বৈঠক করেছেন।

XS
SM
MD
LG