অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

নতুন মানবাধিকার জরিপে হংকংয়ের অবস্থান প্রায় তলানিতে


চীনের কাছে হংকং হস্তান্তরের ২৫ বছর পূর্তি উদযাপনে হংকংয়ে, চীন ও হংকংয়ের পতাকা ঝোলানো হয়েছে, ১৭ জুন ২০২২।

২০১৯ সালের গণতন্ত্রপন্থী আন্দোলনের সময়ে বেইজিংয়ের দমন শুরুর পর থেকে, হংকংয়ের মানবাধিকার পরিস্থিতির দ্রুত অবনতি হয়েছে। নতুন এক জরিপে এমন তথ্য উঠে এসেছে।

দ্য হিউম্যান রাইটস মেজারমেন্ট ইনিশিয়েটিভ (এইচআরএমআই) এই সপ্তাহে এক জরিপের ফল প্রকাশ করে। তাতে দেখা যায় যে, হংকংয়ে মানবাধিকার পরিস্থিতি দ্রুত পরিবর্তন হয়েছে, যার অবস্থান বর্তমানে সৌদি আরব ও ভেনিজুয়েলার প্রায় কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছে। ঐ দুই দেশই তালিকার সর্বশেষ অবস্থানে থাকা চীনের কাছাকাছি রয়েছে।

হংকং পাবলিক ওপিনিয়ন রিসার্চ ইন্সটিটিউট এর অবৈতনিক পরিচালক, চাং কিম-ওয়াহ ভয়েস অফ আমেরিকাকে টেলিফোনে এক সাক্ষাৎকার দেন। তাতে তিনি বলেন, জরিপের তথ্যে দেখা গিয়েছে যে, চীনের জাতীয় নিরাপত্তা আইনের হংকং সংস্করণটি ২০২০ সালে আরোপ করার পর, হংকংয়ের সুশীল সমাজ আকারে ছোট হয়ে গিয়েছে। একই সাথে, বাকস্বাধীনতা ও সমাবেশের স্বাধীনতা দমিত হয়েছে।

এইচআরএমআই এর মুখপাত্র অ্যান-মারি ব্রুক বলেন, “হংকংয়ের গত দুই বছরের ঘটনাবলী প্রত্যক্ষ করা ছিল বেশ যন্ত্রণাদায়ক। আর, আমার ধারণা যে, হংকং পর্যবেক্ষণ করা যে কারও কাছেই, হংকংয়ের [জরিপের] এই ফলাফল আশ্চর্যজনক বলে মনে হবে না।”

ভিওএ ক্যান্টনিজ, এইচআরএমআই এর জরিপ বিষয়ে মন্তব্যের জন্য ওয়াশিংটন ডিসিতে অবস্থিত চীনের দূতাবাসের সাথে যোগাযোগ করে। তবে তাতে কোন সাড়া পাওয়া যায়নি।

এইচআরএমআই, রাষ্ট্রের কাছ থেকে পাওয়া জীবনমান ও নিরাপত্তার বিষয়টি মূল্যায়ন করতে জাতীয় জরিপ পরিচালনা করে । বিশ্বব্যাপী ৩০টি অঞ্চলে জরিপটি পরিচালনা করা হয়ে থাকে। জাতিসংঘের বিভিন্ন চুক্তিতে উল্লেখিত ১৩টি মানদণ্ড ব্যবহার করে জরিপে মানবাধিকার পরিস্থিতি পরিমাপ করা হয়। হংকংয়ে পরিচালিত নিরাপদ ও অনলাইন এই জরিপের উত্তরদাতাদের মধ্যে ছিল স্থানীয় মানবাধিকার কর্মী, মানবাধিকার বিষয়ক আইনজীবি এবং এমন সংবাদকর্মী যারা মানবাধিকার বিষয়ে কাজ করেন।

তথ্য থেকে দেখা যায় যে, হংকংয়ে সমাবেশ ও সংঘের স্বাধীনতা, মতপ্রকাশের স্বাধীনতা এবং রাজনৈতিক অংশগ্রহণের স্বাধীণতার মানের অব্যহত অবনতি ঘটছে টানা তিন বছর ধরে।

XS
SM
MD
LG