অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ওডেসায় রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ১৭ জন নিহত


ইউক্রেনের জরুরি পরিষেবা বিভাগ প্রদত্ত এই ছবিতে দেখা যাচ্ছে, রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর, ১ জুলাই ২০২২ তারিখে ইউক্রেনের ওডেসার ক্ষতিগ্রস্ত এক আবাসিক ভবনে উদ্ধারকারী দলের সদস্যরা কাজ করছেন।

ইউক্রেনের ওডেসা অঞ্চলে শুক্রবার ভোরে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় অন্তত ১৭ জন নিহত হয়েছেন। ঐ হামলায় ডজন কয়েক মানুষ আহতও হয়েছেন। হামলার শিকার স্থাপনাগুলোর মধ্যে অন্তত একটি আবাসিক ভবনও ছিল।

রাশিয়ার প্রতিরক্ষা মন্ত্রক বৃহস্পতিবার জানায় যে তারা ইউক্রেনের স্নেক দ্বীপ থেকে নিজ বাহিনী প্রত্যাহার করে নিয়েছে। চার মাস আগে রাশিয়ার আক্রমণ আরম্ভ হওয়ার পর থেকে ঐ দ্বীপটি ইউক্রেনের প্রতিরোধের প্রতীক হয়ে উঠে।

বন্দরনগরী ওডেসার কাছে কৃষ্ণ সাগরে অবস্থিত এই দ্বীপটিকে রাশিয়া তাদের বাহিনী সমবেত করার স্থান হিসেবে ব্যবহার করে আসছিল। যুদ্ধের শুরুর দিকে দ্বীপটির দখল নিয়েছিল রাশিয়া। দ্বীপটি থেকে রাশিয়া ইউক্রেনে হামলা চালাত ও ইউক্রেনের বন্দর থেকে ছেড়ে যাওয়া জাহাজ পর্যবেক্ষণ করত।

তবে, ইউক্রেন নিশ্চিত করেছে যে, রুশ বাহিনী দ্বীপটি ছেড়ে চলে গিয়েছে। ইউক্রেন জানায়, তাদের বাহিনী দ্বীপটিতে রাতে ক্ষেপণাস্ত্র ও কামান ব্যবহার করে হামলা চালানোর পর অবশিষ্ট রুশ বাহিনী দুইটি স্পিডবোটে করে দ্বীপটি ছেড়ে পালিয়ে যায়।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকির দফতরের প্রধান, অ্যান্ড্রি ইয়ারমেক দ্বীপটি থেকে রুশ বাহিনীর প্রত্যাহারের খবরটি নিশ্চিত করেছেন। এক টুইটার পোস্টে ইয়ারমেক লেখেন, “স্নেক দ্বীপে আর কোন রুশ সৈন্য নেই। আমাদের সশস্ত্র বাহিনী চমৎকার একটি কাজ করেছে।”

এদিকে, ইউক্রেনের এক আঞ্চলিক কর্মকর্তা জানান যে, কয়েক মাসের মধ্যে এই প্রথমবারের মত, ৭,০০০ টন শস্য নিয়ে একটি মালবাহী জাহাজ বৃহস্পতিবার রুশ-অধিকৃত বেরডিয়ানস্ক বন্দর ছেড়ে গিয়েছে। ঐ কর্মকর্তা আরও জানান, জাহাজটিতে সরকারি শস্য বহন করা হচ্ছে এবং জাহাজটি “বন্ধুসুলভ দেশের” উদ্দেশ্যে যাত্রা করছে।


XS
SM
MD
LG