অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পাকিস্তানে সাংবাদিকদের জন্য একটি ভয়াবহ সপ্তাহ


পাকিস্তানের ইসলামাবাদে বিশিষ্ট সাংবাদিক এবং সরকারের সমালোচক মহসিন বেগ আদালত থেকে হাজিরা শেষে বেরিয়ে যাওয়ার সময় হাতে বিজয়ের চিহ্ন দেখাচ্ছেন। এর আগে তাঁকে কোনও সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ছাড়াই তার বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করে নিয়ে যায় পুলিশ। ১৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২২। (ফাইল ছবি)

পাকিস্তানে গত এক সপ্তাহে দুই সাংবাদিককে হত্যা করেছে অজ্ঞাত হামলাকারীরা এবং একজন প্রখ্যাত কলামিস্টকে ধরে নিয়ে নির্যাতন করেছে। এছাড়া, ভিন্নমতাবলম্বী ও রাজনৈতিক বিরোধীদের বিরুদ্ধে সরকারী দমন-পীড়নের অভিযোগের মধ্যে একটি শীর্ষ ইউটিউব চ্যানেলের রাজনৈতিক শো-এর একজন সাংবাদিক-উপস্থাপককে গ্রেপ্তার করেছে দেশটির পুলিশ।

গত ১ জুলাই দক্ষিণ সিন্ধু প্রদেশের খায়রপুর জেলায় বন্দুকধারীরা স্থানীয় সাংবাদিক ইশতিয়াক সোধারোকে গুলি করে হত্যার পর হামলা শুরু হয়। নিহত ব্যক্তি স্থানীয় একটি সিন্ধি ভাষার সাপ্তাহিক পত্রিকার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন। তার স্ত্রী ওই এলাকার এক পুলিশ অফিসারকে তার স্বামীর বিরুদ্ধে মারাত্মক হামলার নির্দেশ দেওয়ার অভিযোগ এনেছেন। তবে হত্যার উদ্দেশ্য জানা যায়নি।

এর একদিন পর, উর্দু ভাষার জাতীয় দৈনিক এক্সপ্রেসের রিপোর্টার ইফতিখার আহমেদ যখন কর্মস্থলে যাচ্ছিলেন, তখন উত্তর-পশ্চিম খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশে অজ্ঞাত বন্দুকধারীদের দ্বারা অতর্কিত হামলার শিকার হয়ে তিনি নিহত হন। পুলিশ জানিয়েছে, ব্যক্তিগত শত্রুতাসহ আহমেদকে হত্যার উদ্দেশ্য নিয়ে তদন্ত চলছে।

ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ জার্নালিস্ট (আইএফজে) মঙ্গলবার এই সব হত্যাকাণ্ডের নিন্দা করেছে। তারা পাকিস্তানি কর্তৃপক্ষকে তাদের সাংবিধানিক ও আন্তর্জাতিক বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী সংবাদপত্রের স্বাধীনতা সুরক্ষার আহ্বান জানিয়েছে।

আইএফজে এক বিবৃতিতে বলেছে, “পাকিস্তানের সরকারকে অবশ্যই আইনের বিধান মোতাবেক সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে, এবং সাংবাদিকদের উপর হামলা কমানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে, যাতে তারা নির্ভয়ে তাদের কাজ করতে পারে।”

শুক্রবার, প্রবীণ সাংবাদিক এবং রাজনৈতিক বিশ্লেষক আয়াজ আমির পূর্বাঞ্চলীয় শহর লাহোরে মুখোশধারীদের দ্বারা শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত হন। মূলধারার দুনিয়া নিউজ চ্যানেলে তাঁর প্রাইম-টাইম অনুষ্ঠান শেষে বাড়ি ফেরার পথে তার গাড়ি আটকানো হয়।

৭২ বছর বয়সী জাতীয়ভাবে পরিচিত প্রবীণ ওই সাংবাদিক সংবাদদাতাদের বলেন, আক্রমণকারীরা তার কর্মস্থলের কাছে একটি ব্যস্ত রাস্তায় "আমার মুখে আঘাত করে এবং আমাকে গাড়ি থেকে টেনে হিঁচড়ে বের করে আনে"।

আমির অভিযোগ করেছেন, মুখোশধারী ওই আততায়ীরা তার এবং তার ড্রাইভারের সেলফোন কেড়ে নিয়েছে এবং "তার জামাকাপড় ছিঁড়ে ফেলেছে"।

তবে এখন পর্যন্ত ওই হামলার দায় কেউ স্বীকার করেনি।

পৃথক আরেকটি ঘটনায় , প্রাদেশিক পুলিশ মঙ্গলবার গভীর রাতে বিশিষ্ট টিভি উপস্থাপক ইমরান রিয়াজ খানকে ইসলামাবাদের উপকণ্ঠে তার বিরুদ্ধে দায়ের করা রাষ্ট্রদ্রোহের মামলায় গ্রেপ্তার করেছে বলে, তার আইনজীবীরা সাংবাদিকদের জানিয়েছেন।

আটক সাংবাদিক, যার ইউটিউব চ্যানেলের ৩০ লাখেরও বেশি সাবস্ক্রাইবার রয়েছে, তিনি পাকিস্তানের রাজনীতিতে সেনাবাহিনীর কথিত ভূমিকার সমালোচনা এবং এ বিষয়ে আলোকপাত করে আসছেন।

XS
SM
MD
LG