অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে তরুণদের এগিয়ে আসতে হবে: সমাবেশে মির্জা ফখরুল


বিএনপির বিক্ষোভ সমাবেশ

জ্বালানি তেলের মূল্যবৃদ্ধি ও বিদ্যুৎ সংকটের প্রতিবাদে রাজধানীর নয়াপল্টন কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে বিএনপির বিশাল সমাবেশের আয়োজন করে বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট)। সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, “তরুণ সমাজ বাংলাদেশ স্বাধীন করেছে। আজকের প্রেক্ষাপটে তরুণ সমাজকে জেগে উঠতে হবে। তরুণদের দেশে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠায় এগিয়ে আসতে হবে। নতুন বাংলাদেশ নির্মাণ করতে হবে।

মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, “সংগ্রাম শুরু হয়েছে, এটা আমাদের বেঁচে থাকার সংগ্রাম।বাংলাদেশের ১৮ কোটি মানুষের বাঁচা-মরার সংগ্রাম।”

মির্জা ফখরুল আরও বলেন, “শেখ হাসিনা সরকারকে বলতে চাই, অবিলম্বে পদত্যাগ করুন। আপনাদেরকে এই মুহূর্তে পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করতে হবে। সংসদ ভেঙে দিতে হবে। নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে। নতুন নির্বাচন দিয়ে সংসদ ও সরকার গঠন করতে হবে।”

তিনি বলেন, “আগামীকাল (১২ আগস্ট) উপজেলা পর্যায়ে সমাবেশ আছে। আগামী ২২ তারিখ থেকে আমরা সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ব। প্রত্যেকটি উপজেলায় শন্তিপূর্ণ সমাবেশে করে ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ের মধ্য দিয়ে এই সরকারকে পরাজিত করতে বাধ্য করব।”

বেলা ১টা ৫০ মিনিটে পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্য দিয়ে বিএনপির ঢাকা দক্ষিণ ও উত্তর মহানগর শাখার আয়োজনে সমাবেশ শুরু হয়। ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির আহ্বায়ক আবদুস সালাম সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন। বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আবদুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, সেলিমা রহমান, ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু এবং আরও কয়েকজন কেন্দ্রীয় নেতা।

সকাল থেকেই দল ও সহযোগী সংগঠনের হাজার হাজার নেতাকর্মী জড়ো হয়ে সড়কের একপাশে অবস্থান নেয়। এর ফলে বিজয়নগর ক্রসিং থেকে ফকিরাপুল পর্যন্ত রাস্তার অপর পাশ দিয়ে যানবাহন চলাচল করে।

সমাবেশস্থলের আশেপাশ বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়। প্রিজন ভ্যান, জলকামান, সাজোয়া যানসহ পোশাকধারী পুলিশের পাশাপাশি সাদা পোষাকের পুলিশও দায়িত্ব পালন করে।

XS
SM
MD
LG