অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

ইউক্রেনে পারমাণবিক আক্রমণ হলে ‘ভয়াবহ’ পরিণতির বিষয়ে রাশিয়াকে সতর্ক করলো যুক্তরাষ্ট্র


জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের ৭৭তম সম্মেলনে অংশগ্রহণের সময়ে ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২২ তারিখে তোলা যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেনের ছবি।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিংকেন বলেছেন যে, যুক্তরাষ্ট্র প্রকাশ্যে ও একান্তে এটি পরিষ্কার করেছে যে, ইউক্রেন সংঘাতে রাশিয়া যেন “পারমাণবিক অস্ত্র বিষয়ে তাদের বেপরোয়া কথাবার্তা বন্ধ করে”। এর আগে রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন বলেছিলেন যে, তিনি রাশিয়ার প্রতিরক্ষায় যে কোন পন্থা ব্যবহার করবেন।

রবিবার সম্প্রচারিত সিবিএস নিউজের “সিক্সটি মিনিটস” অনুষ্ঠানে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ব্লিংকেন বলেন, “এটি খুবই গুরুত্বপূর্ণ যে রাশিয়া যাতে আমাদের কাছ থেকে শুনে রাখে ও জেনে রাখে যে সেটির পরিণতি ভয়াবহ হবে, এবং আমরা খুবই পরিষ্কারভাবে সেটা জানিয়েছি।”

ব্লিংকেন বলেন যে, পারমাণবিক অস্ত্র ব্যবহার করা “বিপর্যয়কর প্রভাব ডেকে আনবে, অবশ্যই সেই দেশের জন্য যারা সেগুলো ব্যবহার করবে, তবে অন্য অনেকের জন্যও বটে।”

গত সপ্তাহে পুতিন পারমাণবিক হামলার সম্ভাব্যতার প্রতি ইঙ্গিত করলে পরে যু্ক্তরাষ্ট্র এমন প্রতিক্রিয়া জানাল। ইউক্রেনে রাশিয়ার সাত মাসব্যাপী আক্রমণটিতে লড়াই করতে সাহায্যের জন্য পুতিন ৩,০০,০০০ সামরিক রিজার্ভ সদস্যকে নিয়োগ দিয়েছেন। যুদ্ধক্ষেত্রে রাশিয়া পিছু হটলে এই সৈন্য বৃদ্ধি করা হয়। ইউক্রেনের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে ইউক্রেনের বাহিনী বিশাল এলাকা পুনর্দখল করেছে, যেই এলাকাগুলো রাশিয়া যুদ্ধের শুরুর সপ্তাহগুলোতে দখল করে নিয়েছিল।

ব্রিটেনের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক সোমবার জানায় যে, প্রথম পর্বে নিযুক্ত সেনাসদস্যরা সামরিক ঘাঁটিগুলোতে এসে পৌঁছানো আরম্ভ করেছে। কিন্তু তাদের প্রশিক্ষণ দেওয়ার ক্ষেত্রে রাশিয়া প্রশাসনিক ও সরবরাহজনিত সমস্যার সম্মুখীন হয়েছে।

মন্ত্রকটি জানায়, “বাধ্যতামূলক নিয়োগপ্রাপ্ত অনেকেরই কয়েক বছর ধরে কোন সামরিক অভিজ্ঞতা নেই। সামরিক প্রশিক্ষকের অভাব, এবং যেই দ্রুততার সাথে রাশিয়া তাদেরকে মোতায়েন করা আরম্ভ করেছে, তাতে ধারণা করা যায় যে বাধ্যতামূলক নিয়োগপ্রাপ্ত অনেক সৈন্যই খুব কম প্রস্তুতি নিয়ে যুদ্ধক্ষেত্রে প্রবেশ করবে। তাদের বিপুল হারে ক্ষয়ক্ষতির সম্মুখীন হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।”

XS
SM
MD
LG