অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

গাড়িবোমা বিস্ফোরণে ক্রাইমিয়ার গুরুত্বপূর্ণ সেতুতে অগ্নিকাণ্ড, জানিয়েছে রাশিয়া


রুশ অধিকৃত ক্রাইমিয়ার কাছের কার্চ প্রণালীতে সূর্যোদয়ের সময়ে কার্চ সেতুতে আগুন দেখা যাচ্ছে, ৮ অক্টোবর ২০২২।

ক্রাইমিয়াকে রাশিয়ার সাথে সংযোগকারী একটি গুরুত্বপূর্ণ সেতুতে একটি গাড়ি বোমা বিস্ফোরণের ফলে ব্যাপক অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়েছে বলে, রাশিয়া শনিবার জানায়। তবে তাৎক্ষণিকভাবে তারা ইউক্রেনকে এজন্য দায়ী করেনি। রাশিয়া ২০১৪ সালে ক্রাইমিয়া দখল করে তা নিজেদের অধিভুক্ত করেছিল।

সড়ক ও রেল সেতুটি রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের নির্দেশে তৈরি করা হয়েছিল এবং ২০১৮ সালে সেটি উদ্বোধন করা হয়। ইউক্রেনে, বিশেষ করে দেশটির দক্ষিণাঞ্চলে, যুদ্ধরত রুশ সৈন্যদের কাছে সামরিক সরঞ্জাম পরিবহন ও সৈন্য পারাপারের জন্য সেতুটি একটি গুরুত্বপূর্ণ সংযোগ ছিল।

কার্চ প্রণালী অবধি বিস্তৃত সেতুটি, অধিকৃত ক্রাইমিয়া ও রাশিয়ার মধ্যে একমাত্র পারাপারের পথ।

রাশিয়ার সংবাদ সংস্থাগুলো জাতীয় সন্ত্রাসবিরোধী কমিটিকে উদ্ধৃত করে জানায়, “আজ সকাল ৬:০৭ মিনিটে (০৩০৭ জিএমটি) ক্রাইমিয়ার সেতুটির সড়কপথের দিকটিতে … একটি গাড়িবোমা বিস্ফোরণ ঘটে, যার ফলে রেলপথে ক্রাইমিয়ার দিকে যাওয়া সাতটি তেলবাহী ট্যাংকারে আগুন ধরে যায়।”

রাশিয়ার সংবাদ সংস্থাগুলো জানিয়েছে যে, ক্রেমলিনের মুখপাত্র বলেছেন, বিস্ফোরণের ঘটনা খতিয়ে দেখতে পুতিন একটি কমিশন গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন।

ক্রাইমিয়ায় রুশস্থাপিত আঞ্চলিক সংসদের প্রধান, ভ্লাদিমির কন্সটানটিনভ ঘটনার জন্য “ইউক্রেনের গুণ্ডাদের” দায়ী করেছেন।

ইউক্রেনে লড়াই সত্ত্বেও রাশিয়া বলে আসছিল যে সেতুটি নিরাপদ। কিন্তু সেটিতে আক্রমণ হলে তার জন্য ইউক্রেনকে প্রতিশোধের হুমকিও দিয়েছিল রাশিয়া।

যদি এটি প্রমাণ হয় যে বিস্ফোরণের পেছনে ইউক্রেনই দায়ী, তাহলে সেটি রাশিয়ার জন্য গুরুতর উদ্বেগের বিষয়, কারণ সেতুটি যুদ্ধক্ষেত্র থেকে অনেক দূরে অবস্থিত।

ক্রাইমিয়া উপদ্বীপে অবস্থিত রুশ সামরিক স্থাপনাগুলোতে বেশ কয়েকটি বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছিল।


XS
SM
MD
LG