অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বিদ্যুৎ স্থাপনায় আরও রুশ হামলার খবর জানিয়েছে ইউক্রেন


ইউক্রেনের ঝিটোমির-এ রুশ ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত এক তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রে আগুন নেভানোর চেষ্টা করছেন দমকলকর্মীরা, ১৮ অক্টোবর ২০২২। (স্টেট ইমার্জেন্সি সার্ভিস অফ ইউক্রেন/রয়টার্সের মাধ্যমে পাওয়া)

ইউক্রেনের রাষ্ট্রীয় জ্বালানি কোম্পানী বৃহস্পতিবার জানায় যে, জ্বালানি অবকাঠামোগুলোকে লক্ষ্য করে রাতভর ধরে রুশ আক্রমণের পর, কোম্পানিটি ইউক্রেনের বেশ কয়েকটি অঞ্চলে বিদ্যুতের ব্যবহার সীমিত করছে।

উক্রেনআরগো বলে যে, হামলাগুলোতে হওয়া ক্ষয়ক্ষতির মধ্যে দেশটির মধ্যাঞ্চলের সরঞ্জামাদি রয়েছে। তারা জানায় যে, নেটওয়ার্কে ওভারলোড এড়াতে ও ক্ষতিগ্রস্ত স্থাপনাগুলো মেরামত করতে বিদ্যুতের ব্যবহার সীমিত করা প্রয়োজন।

ইউক্রেনের বৈদ্যুতিক স্থাপনাগুলোতে নতুন আক্রমণগুলো এমন সময়ে হল যখন কিনা, প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেন্সকি বৈদ্যুতিক গ্রিডে ভারসাম্য ফেরানোর তাদের প্রচেষ্টার জন্য জ্বালানি খাতের কর্মীদের ধন্যবাদ জানান।

জেলেন্সকি তার সান্ধ্যকালীন বক্তব্যে বুধবার বলেন, “শত্রু যাই করুক না কেন, আমাদের কাজ হল তাদের পরিকল্পনাগুলো নস্যাৎ করে দেওয়া ও ইউক্রেনকে রক্ষা করা এবং এটা শুধু কোন একজনের কাজ না, এটা শুধু বিদ্যুৎ [বিভাগের] কর্মীদের বা অন্য কারো একার কাজ না। এখন ইউক্রেনের সকলেরই ভেবেচিন্তে বিদ্যুৎ ব্যবহার করতে হবে।”

ক্রাইমিয়ায় রুশ নিযুক্ত এক কর্মকর্তা বৃহস্পতিবার বলেন যে, রুশ অধিভুক্ত এই উপদ্বীপের এক তাপবিদ্যুৎকেন্দ্রে রাতে একটি ড্রোন হামলা চালানো হয়েছে।

ঐ কর্মকর্তা জানান যে, সেখানকার বিদ্যুৎ সরবরাহে কোন ঝুঁকি নেই এবং কোন হতাহতের ঘটনাও ঘটেনি।


এদিকে, ক্রেমলিন জানিয়েছে যে, বুধবার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন দেশটির কৌশলগত পারমাণবিক বাহিনীর মহড়া দূর থেকে পর্যবেক্ষণ করেছেন। এর মাধ্যমে কোন “ব্যাপক পারমাণবিক হামলায়” সাড়া জানানোর মহড়া দিচ্ছে রাশিয়া।

অপরদিকে, হোয়াইট হাউজ মঙ্গলবার জানায় যে, রাশিয়া আগেই নোটিশ দিয়েছিল যে তারা বার্ষিক মহড়াটি অনুষ্ঠিত করতে যাচ্ছে, যার নাম হল “গ্রোম” বা “বজ্রপাত”। রাশিয়ার মহড়াগুলো এমন সময়ে হচ্ছে যখন কিনা নেটো সোমবার তাদের নিজস্ব বার্ষিক পারমাণবিক মহড়া আরম্ভ করেছে, যার নাম হল “স্টেডফাস্ট নুন” (অটল মধ্যাহ্ন)।


XS
SM
MD
LG