অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য জলবায়ু তহবিলে অর্থ দেবে না বলে জানিয়েছে চীন


মধ্য চীনের শানজি প্রদেশের হেজিনে একটি কয়লা প্রক্রিয়াকরণ স্থাপনা থেকে ধোঁয়া উঠছে। ২৮ নভেম্বর, ২০১৯। ফাইল ছবি।

বুধবার চীন বলেছে, তারা উন্নয়নশীল দেশগুলোর জন্য জলবায়ুর ক্ষতি এবং লোকসান তহবিলে অর্থ প্রদান করবে না। ক্ষুদ্র দ্বীপ রাষ্টগুলো মিশরে চলমান জলবায়ু পরিবর্তন সম্মেলন কপ-২৭ এ উচ্চ কার্বন নির্গমণকারী দেশ হিসেবে চীনের দায়িত্ব উল্লেখ করার পরে তারা এ কথা জানায়।

মঙ্গলবার অ্যাসোসিয়েশন অফ স্মল আইল্যান্ড স্টেটসের পক্ষ থেকে অ্যান্টিগুয়া অ্যান্ড বারবুডার প্রধানমন্ত্রী গ্যাস্টন ব্রাউন গ্রিনহাউস গ্যাস নির্গমনকারী অন্যতম প্রধান রাষ্ট্র চীন এবং ভারতকে জলবায়ু পরিবর্তনের পরিণতির জন্য দরিদ্র দেশগুলোকে ক্ষতিপূরণ দেয়ার একটি তহবিল তৈরি করার আহ্বান জানিয়েছেন।

উন্নয়নশীল দেশগুলো প্রথমবারের মতো চীন এবং ভারতকে কার্বন নিঃসরণের জন্য আর্থিকভাবে দায়বদ্ধ দেশগুলোর মধ্যে অন্তর্ভুক্ত করে।

বুধবার চীনের জলবায়ু সংক্রান্ত দূত বলেছেন, বেইজিং এই ধরনের একটি ব্যবস্থাকে সমর্থন করবে, কিন্তু ক্ষতি ও লোকসান তহবিলে অর্থ প্রদান করবে না।

শি আরও বলেন, চীন তহবিলে অর্থ প্রদান করতে বাধ্য নয়, তবে তিনি উন্নত দেশগুলোর কাছ থেকে এই জাতীয় তহবিল চাওয়ার ক্ষেত্রে উন্নয়নশীল দেশগুলোর সাথে চীনের একমত হওয়ার কথা পুনর্ব্যক্ত করেছেন।

বিশ্বের বৃহত্তম গ্রিনহাউস নির্গমনকারী দেশ হওয়া সত্ত্বেও চীনকে দীর্ঘদিন ধরে একটি উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে তালিকাভুক্ত করা হয়েছে এবং জলবায়ু আলোচনার জন্য কপ-এ উন্নয়নশীল দেশগুলোর সাথে একই দলে রাখা হয়েছে।

ঐতিহাসিকভাবে শিল্প বিপ্লব শুরু হওয়ার পর থেকে বিশ্বের মোট কার্বন নিঃসরণের প্রায় ১৩ শতাংশ চীন করেছে। যুক্তরাষ্ট্র এবং ইইউ প্রত্যেকে ২০ শতাংশের বেশি কার্বন নিঃসরণ করেছে। চীন এবং যুক্তরাষ্ট্রে বিশ্বের যত মানুষ বসবাস করে তার চেয়ে অনেক বেশি কার্বন নিঃসরণ করে থাকে দেশ দুটি। বিশ্বের মোট জনসংখ্যার ১৯ শতাংশের বসবাস চীনে, কিন্তু বিশ্বের এক-চতুর্থাংশ কার্বন নিঃসরণ হয় চীন থেকে।

(ক্লাইমেট ট্র্যাকার্স ক্লাইমেট জাস্টিস ফেলোশিপের সহায়তায় প্রকাশিত)

XS
SM
MD
LG