অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

তালিবানকে নারী ও মেয়েদের ওপর নিষেধাজ্ঞামূলক নীতি প্রত্যাহার করতে বলেছে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ


আফগানিস্তানের কাবুলে একটি বিনোদন পার্কে একজন তালিবান যোদ্ধা পাহারা দিচ্ছেন। ১০ নভেম্বর, ২০২২।

বৃহস্পতিবার জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ তালিবান কর্তৃপক্ষকে আফগান নারী ও মেয়েদের মানবাধিকার এবং মৌলিক স্বাধীনতাকে সীমিত করে আরোপ করা তাদের নীতি ও অনুশীলনগুলো প্রত্যাহার করার আহ্বান জানিয়েছে।

সাধারণ পরিষদের প্রেসিডেন্ট সাবা করোসি দেশটির পরিস্থিতি সংক্রান্ত একটি সভায় বলেছেন, “আফগানিস্তান এখন বিশ্বের একমাত্র রাষ্ট্র যেখানে মেয়েদের সম্পূর্ণ শিক্ষার অধিকার অস্বীকার করা হচ্ছে।” ১৫ মাস ধরে তালিবান আফগানিস্তানে ক্ষমতায় রয়েছে।

তালিবান নারীদের মুক্ত উদ্যানে এবং শরীর চর্চা কেন্দ্রে যাওয়ার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করে সেখানকার নারীদের দৈনন্দিন জীবনে আরও বিধিনিষেধ আরোপ করা হয়েছে- এমন প্রতিবেদনের প্রেক্ষিতে তিনি এ মন্তব্য করেন। ইসলামি জঙ্গি গোষ্ঠীটি ইতোমধ্যেই মাধ্যমিক স্কুলে নারীদের শিক্ষা গ্রহণের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে।

কানাডার রাষ্ট্রদূত বব রে সমাবেশে বলেন, “১২ বছর বয়সী একটি মেয়েকে বলা হচ্ছে, ‘তোমার ভাই স্কুলে যেতে পারবে। তুমি পারবে না।’ কীভাবে আমরা এটা মেনে নিতে পারি?”

সাধারণ পরিষদে একটি বিস্তৃত প্রস্তাব গৃহীত হয়েছে। ১১৬টি দেশ এর পক্ষে ভোট দিয়েছে, ১০টি দেশ ভোট দেয়া থেকে বিরত ছিল (এর মধ্যে রাশিয়া,চীন এবং পাকিস্তান অন্তর্ভূক্ত ছিল)। কোনো দেশ বিপক্ষে ভোট দেয়নি।

যদিও এই প্রস্তাবটি আইনত বাধ্যতামূলক নয়, তবে এটি আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের ওপর নৈতিক বাধ্যবাধকতা জারি করে। প্রস্তাবটিতে তালিবানকে নারী, মেয়ে এবং সংখ্যালঘুদের অধিকারের প্রতি সম্মান জানানোর আহ্বান জানানোর পাশাপাশি দেশের নিরাপত্তা সম্পর্কে “গুরুতর উদ্বেগ” প্রকাশ করা হয়েছে। আফগানিস্তানে ইসলামিক স্টেটের আফগান সহযোগী সংগঠন আল-কায়েদা এবং আইএসআইএস-খোরাসানের হামলা বৃদ্ধি পেয়েছে। অধিবেশনটি তালিবানকে এই গোষ্ঠীগুলোর বিরুদ্ধে “কঠোর পদক্ষেপ নেয়ার” আহ্বান জানিয়েছে।

XS
SM
MD
LG