অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

এম আই ফাইভ প্রধান: ব্রিটেনের জন্য শীর্ষ হুমকির তালিকায় রাশিয়া,চীন ও ইরান


এমআই ফাইভ প্রধান অ্যান্ড্রু পার্কারকে পার্লামেন্টে ইন্টেলিজেন্স অ্যান্ড সিকিউরিটি কমিটির শুনানিতে অংশ নিতে দেখা যায়, লন্ডনের ভিডিও থেকে তোলা এই স্থির চিত্রে, নভেম্বর ৭, ২০১৩। (রয়টার্স/যুক্তরাজ্যের সংসদ, রয়টার্স টিভি/ফাইলের মাধ্যমে)

ব্রিটেনের অভ্যন্তরীণ গোয়েন্দা প্রধান বুধবার বলেন, রাশিয়া, চীন ও ইরান এই তিন রাষ্ট্রের কাছ থেকে ব্রিটেন বড় ধরনের নিরাপত্তা হুমকির মুখোমুখি হয়েছে। তারা সবাই, তাদের স্বার্থ হাসিল করার জন্য চাপ প্রয়োগ, ভীতি প্রদর্শন এবং সহিংসতাকে ব্যবহার করে।

এমআই ফাইভের মহাপরিচালক কেন ম্যাককালাম রাশিয়ার আগ্রাসন এবং চীনের ক্রমবর্ধমান শক্তি সম্পর্কে ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষকে ক্রমাগতভাবে সতর্ক করছেন। তিনি ইরানকে একটি ক্রমবর্ধমান উদ্বেগ হিসাবে উল্লেখ করে বলেন, ব্রিটিশ কর্তৃপক্ষ এই বছর কমপক্ষে ১০ টি "সম্ভাব্য হুমকি" খুঁজে বের করেছে যার মধ্যে,"শাসকগোষ্ঠীর শত্রু হিসাবে বিবেচিত ব্রিটিশ বা যুক্তরাজ্য-ভিত্তিক ব্যক্তিদের অপহরণ বা এমনকি হত্যা করা।”রয়েছে।

তিনি বলেন, ইরানের গোয়েন্দা সংস্থাগুলো, পশ্চিমা মাটিতে এবং মানুষকে ইরানের প্রতি প্রলুব্ধ করে, উভয়ভাবেই, বিরোধীদের বিরুদ্ধে ‘'বেপরোয়া পদক্ষেপ নিতে প্রস্তুত'’।

গত সপ্তাহে, ইরানের বিরুদ্ধে ব্রিটেনে কর্মরত সাংবাদিকদের হুমকি দেওয়ার অভিযোগ নিয়ে, ব্রিটিশ সরকার লন্ডনে তেহরানের শীর্ষ কূটনীতিককে জবাবদিহির জন্য তলব করে। ব্রিটেন ভিত্তিক ফারসি ভাষার স্যাটেলাইট নিউজ চ্যানেল ইরান ইন্টারন্যাশনাল জানিয়েছে, ব্রিটিশ পুলিশ তাদের দুই সাংবাদিককে তাদের ও তাদের পরিবারের জীবনের প্রতি “আসন্ন, বিশ্বাসযোগ্য ও গুরুত্বপূর্ণ ঝুঁকি’’ সম্পর্কে ইতোমধ্যে সতর্ক করেছে।

বৈরি রাষ্ট্র ও সন্ত্রাসী গোষ্ঠী উভয়ের কাছ থেকেই যুক্তরাজ্যের জন্য বড় হুমকির কথা উল্লেখ করে এক ভাষণে ম্যাককালাম বলেন, রাশিয়া, চীন এবং ইরান একে অপরকে সাহায্য করে,"নিজেদের শক্তি বাড়িয়ে তুলবে’’ এমন একটি ঝুঁকি রয়েছে।

তিনি বলেন, ইউরোপে রুশ মিশনে কূটনৈতিক আবরণে কাজ করা ৪০০ জন গুপ্তচরকে বহিষ্কার করা হয়েছে। যার মধ্যে ব্রিটেনে ছিল ২৩ জন। ইউক্রেনে আগ্রাসনের পর থেকে রাশিয়ার গুপ্তচরবৃত্তির সক্ষমতার ‘’উল্লেখযোগ্য কৌশলগত আঘাত’’ দিয়ে মোকাবেলা করা হয়েছে।

তবে তিনি বলেন, “আগামী কয়েক বছরের জন্য রুশ আগ্রাসনের ব্যাপারে ব্রিটেনকে অবশ্যই প্রস্তুত থাকতে হবে।”

এ সপ্তাহে ইন্দোনেশিয়ায় গ্রুপ অফ টুয়েন্টির শীর্ষ সম্মেলনে প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক বলেন, চীন “আমাদের মূল্যবোধ ও স্বার্থের জন্য একটি পদ্ধতিগত চ্যালেঞ্জ এবং এটি আমাদের অর্থনৈতিক নিরাপত্তার জন্য সবচেয়ে বড় রাষ্ট্র-পরিচালিত হুমকি তুলে ধরে। ”

XS
SM
MD
LG