অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

উত্তর চট্টগ্রামসহ ২ পার্বত্য জেলায় পরিবহন ধর্মঘট


উত্তর চট্টগ্রামসহ ২ পার্বত্য জেলায় পরিবহন ধর্মঘট

উত্তর চট্টগ্রাম ও দুই পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটি ও খাগড়াছড়িতে বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) সকাল থেকে পরিবহন ধর্মঘট পালন করছেন বাস মালিকেরা। এতে ওই অঞ্চলের হাজার হাজার মানুষ চরম দুভোর্গে পড়েছেন।

গতকাল বুধবার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কক্সবাজারের জনসভা উপলক্ষে পুলিশ কর্তৃক গণহারে বাস রিকুইজিশন করার প্রতিবাদে বাস মালিকেরা বাস চলাচল বন্ধ রেখে এই ধর্মঘট পালন করছেন।

চট্টগ্রাম সড়ক পরিবহন মালিক গ্রুপের যুগ্ম সম্পাদক মোহাম্মদ শাহজাহান বলেন, ‘পুলিশের প্রয়োজনে, দেশের স্বার্থে পুলিশ সবসময়ই গাড়ি রিকুইজিশন করতে পারে; আমরাও পুলিশকে গাড়ি দিয়ে সহযোগিতা করি। কিন্তু পুলিশ সমাবেশের নামে হাটহাজারী থেকে ২৪টিসহ চট্টগ্রাম থেকে ৯৭টি বাস রিকুইজিশন করে নিয়ে যায়। এর মধ্যে ১৩টি বাস পুলিশ ব্যবহার করলেও বাকি বাসগুলো চট্টগ্রাম থেকে খালি নিয়ে উখিয়া-টেকনাফ থেকে কক্সবাজারের প্রধানমন্ত্রীর জনসভার লোকজন আনা-নেওয়া করেছে’।

তিনি বলেন, ‘নিয়ম অনুযায়ী রিকুইজিশন করা বাসগুলোর চালক ও সহকারীদের খাবার ও ডিজেল খরচ দেওয়ার কথা থাকলেও তা পর্যাপ্ত দেওয়া হয়নি। ফলে আর্থিক ক্ষতিসহ নানাভাবে আমরা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছি’।

তিনি আরও বলেন, ‘৮ দিন আগে পুলিশ চট্টগ্রামের কথা বলে খাগড়াছড়ি থেকে পাঁচটি বাস রিকুইজিশন করলেও পরে তা কক্সবাজার-টেকনাফ নিয়ে গেছে। পুলিশের এই সব হয়রানির প্রতিকার চেয়ে বৃহস্পতিবার রাঙ্গামাটি-খাগড়াছড়ি ও উত্তর চট্টগ্রামের প্রতীকী পরিবহন ধর্মঘট আহ্বান করেছি। এরপর আমরা পরবর্তী কর্মসূচি ঘোষণা করব’।

অভিযোগের বিষয়ে জানতে চাইলে চট্টগ্রাম জেলা পুলিশের নতুন পুলিশ সুপার (এসপি) এস এম শফিউল্লাহ বলেন, ‘গাড়ি রিকুইজিশন করা কিছু মালিকের সঙ্গে ভুল বুঝাবুঝি হয়েছে। তারা তেলের টাকা পাবে। তা আজকে সন্ধ্যার মধ্যে বুঝিয়ে দেওয়া হবে’।

তিনি আরও বলেন, ‘কোনো পরিবহন ধর্মঘট হচ্ছে না। দু–একজন মালিক এটা ডেকেছেন। মালিক সমিতি ধর্মঘট ডাকেনি। আপনারা মালিক সমিতির নেতা মঞ্জুর আলমের সঙ্গে কথা বলুন’।

XS
SM
MD
LG