অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

২০২২ সালে দায়িত্ব পালনকালে ৬৭ জন সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মী নিহত হয়েছেন


হত্যার শিকার ফিলিস্তিনি-আমেরিকান সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহ-র মৃত্যুর প্রতিবাদে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সফরের আগে পূর্ব জেরুজালেমের অগাস্টা ভিক্টোরিয়া হাসপাতালের কাছে প্রতিবাদকারীরা পোস্টার হাতে দাঁড়িয়ে রয়েছেন, ১৫ জুলাই ২০২২। (ফাইল ফটো)

ইউক্রেনে রাশিয়ার যুদ্ধ, হাইতিতে বিশৃঙ্খলা এবং মেক্সিকোতে অপরাধী গোষ্ঠীগুলোর ক্রমবর্ধমান সহিংসতার দরুণ, আগের বছরের তুলনায় ২০২২ সালে ৩০% বেশি সাংবাদিক কাজ করতে গিয়ে নিহত হয়েছেন। শুক্রবার প্রকাশিত এক নতুন প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

দ্য ইন্টারন্যাশনাল ফেডারেশন অফ জার্নালিস্টস (আইএফজে) জানিয়েছে যে এই বছর এখনও পর্যন্ত বিশ্বজুড়ে ৬৭ জন সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মী নিহত হয়েছেন, যেই সংখ্যাটি আগের বছর ছিল ৪৭ জন।

ব্রাসেলস ভিত্তিক এই সংস্থাটির হিসাব অনুযায়ী, বর্তমানে ৩৭৫ জন সাংবাদিক তাদের কাজের জন্য কারাবন্দি অবস্থায় রয়েছেন, যাদের বেশিরভাগই রয়েছেন চীন, মিয়ানমার ও তুরস্কে। গত বছরের প্রতিবেদনে ৩৬৫ জন সাংবাদিকের কারাবন্দি থাকার হিসাব দেওয়া হয়েছিল।

নিহত গণমাধ্যমকর্মীদের সংখ্যা বাড়তে থাকায় সংস্থাটি সরকারগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছে, যাতে তারা সাংবাদিক ও স্বাধীন সাংবাদিকতাকে সুরক্ষা দিতে আরও জোরালো পদক্ষেপ গ্রহণ করে।

আইএফজে’র তথ্য অনুযায়ী, ইউক্রেন যুদ্ধের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে এই বছর অন্য যে কোন দেশের তুলনায় বেশি গণমাধ্যমকর্মী নিহত হয়েছেন – মোট ১২ জন। তাদের বেশিরভাগই ইউক্রেনীয় ছিলেন তবে তাদের মধ্যে অন্যান্য দেশের নাগরিকরাও রয়েছেন, যেমন আমেরিকান ডকুমেন্টারি ফিল্ম নির্মাতা ব্রেন্ট রেনো। এগুলোর বেশিরভাগ মৃত্যুই যুদ্ধের শুরুর বিশৃঙ্খল সপ্তাহগুলোতে হয়, যদিও লড়াই চলতে থাকায় সাংবাদিকদের প্রতি ঝুঁকি অব্যাহত রয়েছে।

আইএফজে বলেছে, “মেক্সিকোতে অপরাধী সংগঠনগুলোর সন্ত্রাসের শাসন, এবং হাইতিতে আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভেঙে পড়াও নিহতের সংখ্যা বৃদ্ধিতে অবদান রেখেছে।” মেক্সিকোর সাংবাদিকদের জন্য ২০২২ সালটি সবচেয়ে ভয়াবহ বছরগুলোর একটি ছিল। কোন যুদ্ধক্ষেত্রের বাইরে বর্তমানে মেক্সিকোকেই সংবাদদাতাদের জন্য সবচেয়ে বিপজ্জনক হিসেবে বিবেচনা করা হয়।

পাকিস্তানে এই বছরের রাজনৈতিক সংকটের মধ্যে সংস্থাটি দেশটিতে পাঁচজন সাংবাদিকের মৃত্যুর ঘটনা নথিবদ্ধ করে। এছাড়াও, কলম্বিয়ায় সাংবাদিকদের প্রতি নতুন হুমকির বিষয়ে সতর্ক করেছে আইএফজে। ফিলিপাইনে নতুন নেতৃত্ব সত্ত্বেও সেখানে সাংবাদিকদের প্রতি অব্যাহত বিপদের বিষয়েও সতর্ক করা হয়েছে।

আইএফজে আল জাজিরার সাংবাদিক শিরিন আবু আকলেহ-র গুলিবিদ্ধ হওয়ার ঘটনাটিও উল্লেখ করেছে। গুলিবিদ্ধ হওয়ার সময়ে আবু আকলেহ প্যালেস্টাইনের একটি শরণার্থী শিবিরে সংবাদ সংগ্রহ করছিলেন। আরব অঞ্চলের এই সংবাদমাধ্যমটি আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতকে আবু আকলেহ-র মৃত্যুর তদন্ত করতে এই সপ্তাহে আনুষ্ঠানিকভাবে অনুরোধ জানিয়েছে।

XS
SM
MD
LG