অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বাংলাদেশের সঙ্গে বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক জোরদার করবে যুক্তরাজ্য


বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে যুক্তরাজ্যের ইন্দো-প্যাসিফিক বিষয়ক মন্ত্রী অ্যান-মারি ট্রেভেলিয়ান

যুক্তরাজ্যের ইন্দো-প্যাসিফিক বিষয়ক মন্ত্রী অ্যান-মারি ট্রেভেলিয়ান বলেছেন যে যুক্তরাজ্য বাণিজ্য, বিনিয়োগ ও জনগণের মধ্যে যোগাযোগের মাধ্যমে বাংলাদেশের সঙ্গে তাদের দ্বিপক্ষীয় সম্পর্ক জোরদারে আগ্রহী। সোমবার (১২ ডিসেম্বর) লন্ডনে, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান এফ রহমানের সঙ্গে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে যুক্তরাজ্যের মন্ত্রী এ কথা বলেন।

বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদার আতিথেয়তা এবং রোহিঙ্গাদের শিক্ষা ও জীবিকা নিশ্চয়তাসহ তাদের উন্নত জীবনধারণের অব্যাহত সহযোগিতা প্রচেষ্টার প্রশংসা করেন ব্রিটিশ মন্ত্রী অ্যান-মারি ট্রেভেলিয়ান। তিনি রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে যুক্তরাজ্যের সহযোগিতা অব্যাহত রাখার অঙ্গীকার পুনর্ব্যক্ত করেন।

জলবায়ু ও ডিজিটাল অর্থনীতিতে বাংলাদেশের সঙ্গে ভবিষ্যৎ অংশীদারিত্ব তৈরির বিষয়ে আলোচনা করেন উভয় পক্ষ। উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, যুক্তরাজ্যের ইন্দো-প্যাসিফিক মন্ত্রীকে, ২০০৯ থেকে ২০২২ সালের মধ্যে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধির ঊর্ধ্বগতির বিষয়ে অবহিত করেন।

গত এক দশকে বাংলাদেশের অসাধারণ প্রবৃদ্ধির পেছনের কৌশল সম্পর্কে ব্রিটিশ মন্ত্রীর এক প্রশ্নের জবাবে সালমান এফ রহমান বলেন, “আমাদের প্রধানমন্ত্রীর লক্ষ্য ছিল শিল্পোন্নয়নের জন্য নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুতের ব্যবস্থা, শিক্ষা ও কর্মসংস্থানের মাধ্যমে নারীর ক্ষমতায়ন এবং আমাদের ১৬ কোটি ৫০ লাখ মানুষের জন্য খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা।”

উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান যুক্তরাজ্যের মন্ত্রীকে বাংলাদেশ সফরের আমন্ত্রণ জানান। জবাবে, মন্ত্রী ট্রেভেলিয়ান ২০২৩ সালের ফেব্রুয়ারিতে বাংলাদেশ সফরের আশা ব্যক্ত করেন। বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম।

XS
SM
MD
LG