অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

যুগান্তকারী কূটনৈতিক সফরে বেইজিং যাচ্ছেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী


অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী পেনি ওং নিউজিল্যান্ডের ওয়েলিংটনে। ১৬ জুন, ২০২২। ফাইল ছবি।

অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী পেনি ওং মঙ্গলবার চীন যাচ্ছেন। এটি দেশ দুটির মধ্যকার দ্বিপাক্ষিক সম্পর্কের উন্নতির ইঙ্গিত দেয়।

বিভিন্ন ভূ-রাজনৈতিক বিষয় এবং কোভিড-১৯ এর উৎপত্তি নিয়ে বেইজিং এবং ক্যানবেরার মধ্যে দ্বন্দ্ব চলছে। হংকং-এ গণতন্ত্র, চীনের জিনজিয়াং প্রদেশ এবং তাইওয়ানে মানবাধিকার নিয়েও দেশ দুটির মধ্যে মতবিরোধ রয়েছে।

প্রত্যুত্তরে চীন মদ এবং বার্লিসহ অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন পণ্যের ওপর বিধিনিষেধ আরোপ করেছে। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে যখন “চীন-বিরোধী হিস্টেরিয়া”র দাবি করা হয়েছিল, বেইজিং-এর বিরুদ্ধে তখন অর্থনৈতিক জবরদস্তির অভিযোগ আনা হয়েছিল।

এই সপ্তাহে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওং-এর বেইজিং সফর উত্তেজনা হ্রাসের লক্ষণ। তিনি চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ইয়ের সাথে সাক্ষাৎ করবেন; দুই দেশের মধ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে এই সফর সম্পন্ন হবে।

সোমবার অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্টনি আলবানিজ এক বিবৃতিতে বলেছেন, অস্ট্রেলিয়া তাদের বৃহত্তম ব্যবসায়িক অংশীদার চীনের সাথে স্থিতিশীলতা এবং সহযোগিতা চাচ্ছে; তবে সেখানেও মতবিরোধ থাকবে।

মে মাসে অস্ট্রেলিয়ায় মধ্য-বাম লেবার সরকার নির্বাচিত হয়। এটি দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়িক অংশীদারের সাথে সম্পর্ক ভাল করতে চাইছে।

নভেম্বরে ইন্দোনেশিয়ার বালিতে জি-২০ শীর্ষ সম্মেলনের ফাঁকে আলবানিজ চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং-এর সাথে সাক্ষাৎ করেছিলেন।

শেষবার ২০১৯ সালের নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন বাণিজ্যমন্ত্রী সাইমন বার্মিংহাম চীন সফর করেছিলেন।

মঙ্গলবার পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওং বলেছেন, তার বেইজিং সফর রাতারাতি দুই দেশের মধ্যকার সমস্যার সমাধান করবে না তবে তিনি বাণিজ্যিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার এবং বেইজিং-এ আটক অস্ট্রেলিয়ান নাগরিকদের মুক্তির জন্য চাপ দেবেন।

XS
SM
MD
LG