অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

জাতিসংঘ শান্তিরক্ষী সেনা হত্যায় ৭ সন্দেহভাজনকে অভিযুক্ত করেছে লেবানন


২০২২ সালের ১৮ ডিসেম্বর, বৈরুত বিমানবন্দরে প্রাইভেট শন রুনির কফিনের পাশে দাঁড়িয়ে জাতিসংঘের এক আইরিশ শান্তিরক্ষী। ১৫ ই ডিসেম্বর লেব্বাননের দক্ষিণাঞ্চলের শহর আল-আকবিয়ার কাছে বাসিন্দাদের সাথে সংঘর্ষের সময় রুনি নিহত হন।

লেবাননের সামরিক আদালত বৃহস্পতিবার গত মাসে সংঘটিত হামলায় সাত জন সন্দেহভাজনকে অভিযুক্ত করেছে। কর্মকর্তারাজানিয়েছেন একদল স্থানীয় সশস্ত্র এলাকাবাসী আইরিশ শান্তিরক্ষী সেনারযানবহরের উপর গুলি চালিয়ে তাকে হত্যা করে।

লেবাননের দক্ষিণাঞ্চলের আল-আকবিয়া শহরের কাছে যা লেবাননের জঙ্গি গোষ্ঠী হিজবুল্লাহর সমর্থনের কেন্দ্রস্থল সেখানেগুলির ঘটনাটি ঘটে। তবে তারা ঐ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে তাদের কোন রকমসংশ্লিষ্টতা অস্বীকার করেছে।

ঐ হামলায় আয়ারল্যান্ডের নিউটাউন কানিংহামের ২৪ বছর বয়সী প্রাইভেট সঁ রুনি প্রান হারান এবং ২২ বছর বয়সী প্রাইভেট শেনকেরনি গুরুতরভাবে আহত হন। আহত শান্তিরক্ষী সেনাকে লেবানন থেকে আয়ারল্যান্ডে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। গাড়িতে থাকা আরও দুই আইরিশ সৈন্য সামান্য আহত হন ।

ডিসেম্বর মাসের শেষের দিকে লেবাননের সামরিক বাহিনী “হিজবুল্লাহর সহযোগিতায়” এক সন্দেহভাজনকে গ্রেপ্তার করে যারা বলেছে যে ঐ ব্যক্তি হিজবুল্লাহর সদস্য ছিলেন না।

বিচার বিভাগের এক কর্মকর্তা যিনি তদন্ত সম্পর্কে ওয়াকিবহাল তিনি, একজন আইনীজীবী এবং এক সামরিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন গ্রেফতারকৃত ব্যক্তি এবং আরও ছয়জনকে ঐ হামলায় অভিযুক্ত করা হয়েছে। এরা সকলেই নাম প্রকাশ না করার শর্তে নিয়মকানুনের সাথে সামঞ্জস্য রেখেই কথা বলেন। কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, সন্দেহভাজন বাকি ছয়জনকে খোঁজা হচ্ছে এবং কর্মকর্তারা জানার চেষ্টা করছেন যে ঐ ৬জন দেশ ছেড়ে চলে গেছেন কিনা।

লেবাননের সামরিক বাহিনী এক সংক্ষিপ্ত বিবৃতিতে বলেছে, মামলাটি মঙ্গলবার “যথাযথ বিচার বিভাগে” স্থানান্তর করা হয়েছে তবে তারা অভিযোগ বা অন্যান্য অগ্রগতির কথা উল্লেখ করেনি।

লেবাননের দক্ষিণাঞ্চলে জাতিসংঘ শান্তিরক্ষা মিশন ইউনিফিল, অ্যাসোসিয়েটেড প্রেসকে জানিয়েছে যে তারা এই মামলায় গ্রেপ্তার বা অভিযোগ সম্পর্কে কোনও তথ্য পায়নি। হিজবুল্লাহ সর্বসাম্প্রতিক ঘটনাবলী সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদের তাৎক্ষণিক জবাব দেয়নি।

XS
SM
MD
LG