অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

সরকার উৎখাতের চেষ্টায় বিএনপির সঙ্গে যোগ দিয়েছে চরমপন্থীরা: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা


প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, “সকল চরম ডানপন্থী এবং বামপন্থী দলগুলো বিএনপির সঙ্গে যোগ দিয়ে দেশ ও জনগণের কল্যাণে অক্লান্ত পরিশ্রমকারী আওয়ামী লীগ সরকারকে ক্ষমতাচ্যুত করার চেষ্টা করছে।” মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) রাজধানী ঢাকার বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে (বিআইসিসি), আওয়ামী লীগ আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসের আলোচনা সভায় এ কথা বলেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনা।

১৯৭২ সালের এই দিনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পাকিস্তানের কারাগারে সাড়ে নয় মাস কাটিয়ে, লন্ডন ও নয়াদিল্লি হয়ে সদ্য স্বাধীন বাংলাদেশে ফিরে আসেন।

আওয়ামী লীগ সভানেত্রী বলেন, “এখন তারা (বিএনপি) বলছে তারা ১১ জানুয়ারি থেকে আন্দোলন গড়ে তুলবে…তারা চরম বামপন্থী ও ডানপন্থীদের সঙ্গী করেছে। আমাদের ক্ষমতা থেকে উৎখাত করতে সমস্ত চরমপন্থী এক জায়গায় জড়ো হচ্ছে।” শেখ হাসিনা বলেন, তার সরকার এতটাই শক্তিশালী যে বিএনপি ও তার চরমপন্থী মিত্রদের পক্ষে এই সরকারকে ক্ষমতা থেকে উৎখাত করা মোটেও সহজ হবে না।

তিনি বলেন, “আমি আপনাদের একটা কথা বলি। তা হলো আওয়ামী লীগ জনগণ ও তাদের কল্যাণে কাজ করে। কেউ এই দলকে নাড়া দিলে তা পড়ে যাবে বলে মনে করবেন না। এটি এত সহজ নয়।”

শেখ হাসিনা বলেন, “ডিজিটাল রূপান্তরের সুযোগ নিয়ে বিএনপি এমন লোকদের নিয়োগ দিয়েছে, যারা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আওয়ামী লীগের বিরুদ্ধে কুৎসা রটনা করছে এবং জনগণকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছে।” তিনি বলেন “তারা ১০ ডিসেম্বর (বিএনপির সমাবেশ) ঢাক-ঢোল পিটিয়ে আতঙ্ক ছড়িয়েছে, শেষ পর্যন্ত তা গোলাপবাগ গিয়ে দাঁড়ায়।”

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা স্মরণ করিয়ে দেন যে খালেদা জিয়া তার সরকারের অধীনে ১৯৯৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি এবং ২০০৬ সালের ৬ জানুয়ারিতে অনুষ্ঠিত দু’টি নির্বাচন বাতিল করতে বাধ্য হয়েছিলেন।

বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী বলেন, “স্বচ্ছ ব্যালট বাক্স, ছবিসহ ভোটার তালিকা, আইডি কার্ড এবং ইভিএম সবই আমাদের দ্বারা চালু করা হয়েছে, যাতে মানুষ নির্বিঘ্নে তাদের ভোট দিতে পারে।” আওয়ামী লীগের অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে বলে উল্লেখ করেন তিনি। বলেন, “আওয়ামী লীগের নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী সরকার দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে এবং বাংলাদেশ ইতোমধ্যে উন্নয়নশীল দেশের মর্যাদা পেয়েছে।”

শেখ হাসিনা বলেন, “২১ বছর পর ক্ষমতায় ফিরে আওয়ামী লীগ দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ শুরু করেছে। পরবর্তীতে আওয়ামী লীগ সরকার বাংলাদেশকে ডিজিটাল দেশ হিসেবে গড়ে তুলেছে এবং জনগণের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান ও চিকিৎসা সহ মৌলিক অধিকার নিশ্চিত করেছে।”

স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা এবং মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে বঙ্গবন্ধুর আজীবন সংগ্রাম ও আত্মত্যাগের কথা তুলে ধরেন শেখ হাসিনা।

XS
SM
MD
LG