অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

পাকিস্তানে জ্বালানি সাশ্রয়ী পদক্ষেপ হিসেবে লোড শেডিং-এর কারণে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা বিঘ্নিত


সারা দেশে বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন হওয়ার পরে অরেঞ্জ মেট্রো ট্রেনের একজন কর্মী লাহোরে একটি স্টেশনে ‘বন্ধ’ লেখা নোটিশ বোর্ডের পাশে দাঁড়িয়ে আছে। ২৩ জানুয়ারি, ২০২৩।

পাকিস্তান সরকারের জ্বালানি সাশ্রয় পদক্ষেপের অংশ হিসাবে সোমবার সকালে দেশটির বেশিরভাগ অংশ কয়েক ঘণ্টার জন্য বিদ্যুৎবিহীন ছিল। এই বিভ্রাট আতংক ছড়িয়েছে এবং দেশটির অর্থনৈতিক সংকট মোকাবিলায় নগদ অর্থ সংকুচিত এই সরকারের পরিচালনা সম্পর্কে প্রশ্ন উত্থাপন করেছে।

পাম্পগুলো বিদ্যুৎ চালিত হওয়ায় সোমবার দেশব্যাপী বিপর্যয়ের কারণে অনেক মানুষ পানীয় জল পাননি। প্রচণ্ড শীতের মধ্যে স্কুল, কলেজ, কারখানা এবং দোকানপাট বিদ্যুৎবিহীন ছিল।

জ্বালানি মন্ত্রী খুররম দস্তগীর সোমবার স্থানীয় গণমাধ্যমকে বলেছেন, প্রকৌশলীরা রাজধানী ইসলামাবাদসহ সারা দেশে বিদ্যুৎ সরবরাহ পুনরুদ্ধার করা জন্য কাজ করছেন। আগামী ১২ ঘণ্টার মধ্যে বিদ্যুৎ সম্পূর্ণ পুনরুদ্ধার করা হবে- এমনটা বলে তিনি জাতিকে আশ্বস্ত করা্র চেষ্টা করেন।

কোয়েটা, পেশোয়ার এবং লাহোরের মতো গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলোর পাশাপাশি দেশের বৃহত্তম শহর এবং অর্থনৈতিক কেন্দ্র করাচিও সোমবার বিদ্যুৎবিহীন ছিল।

বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ হ্রাসের প্রেক্ষিতে পাকিস্তান সাম্প্রতিক বছরগুলোতে দেশটির অন্যতম অর্থনৈতিক সংকটে নিমজ্জিত হয়েছে।এর ফলে জ্বালানি সংরক্ষণের উদ্দেশ্যে এই মাসের শুরুতে দেশটির সরকার বিপণী কেন্দ্র এবং বাজারগুলো রাত সাড়ে ৮টার মধ্যে বন্ধ করার নির্দেশ দিতে বাধ্য হয়েছে।

৬০০ কোটি ডলারের বেইলআউটের কিছু শর্ত নমনীয় করার জন্য আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের সাথে পাকিস্তানের আলোচনা চলছে। দেশটির সরকার মনে করে, এই শর্তগুলো নমনীয় না করা হলে মুদ্রাস্ফীতি আরও বৃদ্ধি পাবে। আইএমএফ আগস্ট মাসে ইসলামাবাদকে ১শ ১০ কোটি ডলারের সর্বশেষ গুরুত্বপূর্ণ কিস্তি প্রদান করেছে।

নতুন কর ব্যবস্থা আরোপ করতে পাকিস্তানের অনীহার কারণে দুই পক্ষের মধ্যকার আলোচনা দোদুল্যমান রয়েছে।

XS
SM
MD
LG