অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

বার্লিনের দ্বিধা সত্ত্বেও জার্মানির তৈরি ট্যাংক ইউক্রেনে পাঠাবে পোল্যান্ড


পোল্যান্ডের অরজিসের কাছে নেটো সেনাদের ডিফেন্ডার ইউরোপ ২০২২ সামরিক অনুশীলনের সময় একটি পোলিশ লেপার্ড -টুপিএল ট্যাংকে আগুন। ফাইল ছবি।

সোমবার পোল্যান্ড বলেছে, বার্লিনের কোনোপ্রকার আপত্তি থাকলেও তারা ইউক্রেনে জার্মানির তৈরি লেপার্ড -টু ট্যাংক পাঠাবে। বেশ কয়েকটি ইউরোপীয় সেনাবাহিনী ট্যাংকগুলো পরিচালনা করে থাকে তবে এগুলো ইউক্রেনে পুনরায় রপ্তানি করার জন্য জার্মানির অনুমোদনের প্রয়োজন।

কিয়েভের বাহিনীকে সহায়তা করার জন্য জার্মানি ইউক্রেন এবং পশ্চিমা মিত্রদের কাছ থেকে তাদের লেপার্ড -টু ট্যাংক পাঠানোর জন্য তীব্র চাপের মধ্যে রয়েছে কিন্তু তারা ত্বড়িত সিদ্ধান্ত নিতে চাচ্ছে না।

শুক্রবার জার্মানির রামস্টেইনে প্রায় ৫০টি রাষ্ট্রের একটি জোট ইউক্রেন ডিফেন্স কন্টাক্ট গ্রুপ যারা কিয়েভকে সামরিক সহায়তা দিচ্ছে তাদের সঙ্গে একটি বৈঠকের পর জার্মানির নতুন প্রতিরক্ষামন্ত্রী বরিস পিস্টোরিয়াস তার দেশের দ্বিধার জায়গাটি ব্যাখ্যা করেন।

পিস্টোরিয়াস বলেন, “এটি সরবরাহের ভালো যুক্তি আছে, এবং না করার পক্ষেও ভালো যুক্তি আছে। আর ইতোমধ্যে প্রায় এক বছর ধরে চলে আসা যুদ্ধের সামগ্রিক পরিস্থিতির আলোকে,সমস্ত ভালো-মন্দ খুব সাবধানে নির্ণয় করা উচিত। ”

ইউক্রেন বলছে, রাশিয়ার আক্রমণ প্রতিহত করতে এবং বসন্তে নতুন আক্রমণ শুরু করার জন্য তাদের জরুরিভাবে আধুনিক পশ্চিমা ট্যাংকের প্রয়োজন। সাম্প্রতিক দিনগুলোতে দেশটির প্রেসিডেন্ট মিত্রদের কাছে আরও অস্ত্রের আবেদন করেছেন।

তুলনামূলকভাবে স্বল্প জ্বালানি খরচ এবং সীমিত ইউক্রেনীয় সরবরাহ শৃঙ্খলের কারণে জার্মানির লেপার্ড-টু ট্যাংকটিকে যুদ্ধক্ষেত্রের জন্য সবচেয়ে উপযুক্ত মনে করা হয়। ইউরোপীয় সেনাবাহিনীর কাছে এরকম শত শত ট্যাংক রয়েছে যা ইউক্রেনে দ্রুত পাঠানো যেতে পারে।

জার্মান কাউন্সিল অন ফরেন রিলেশনসের বিশ্লেষক বেঞ্জামিন ট্যালিস বলেছেন, ক্ষমতাসীন জোটের অংশীদারদের মধ্যে দেশীয় রাজনৈতিক উত্তেজনা বিভ্রান্তির সৃষ্টি করছে।

বিশ্লেষকরা বলছেন, ক্রেমলিনের পারমাণবিক সক্ষমতা বার্লিনে উদ্বেগ সৃষ্টি করছে।

XS
SM
MD
LG