অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

আজারবাইজানের একটি শহরে ক্ষেপনাস্ত্র হামলায় অন্তত ১২ জন নিহত, আহত ৪০


আজারবাইজানে কর্তৃপক্ষ বলছে গাঞ্জা শহরে আজ খুব ভোরে ক্ষেপনাস্ত্র আক্রমণে অন্তত ১২ জন লোক নিহত এবং আরও ৪০ জন আহত হয়েছে। আজারবাইজানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রক দাবি করছে যে গাঞ্জা এবং মিঙ্গাশেভির শহর দুটিতে আর্মেনিয়ার দুটি ভিন্ন ভিন্ন জায়গা থেকে ক্ষেপনাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয়। আর্মেনিয়ার কর্তৃপক্ষ এই দুটি শহরে আক্রমণ চালানোর সত্যতা স্বীকার কিংবা অস্বীকার কোনটাই করেনি।

আজারবাইজানের সরকারী সুত্রগুলোর মতে শনিবারের এই ক্ষেপনাস্ত্র হামলার ফলে, সে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম শহর গাঞ্জায় অন্তত কুড়িটি আবাসিক ভবন বিধ্বস্ত হয়েছে।

আজারবাইজান ও আর্মেনিয়ার মধ্যকার চলমান লড়াই শুরু হয় ২৭ শে সেপ্টেম্বর এবং এর ফলে শত শত লোক প্রাণ হারিয়েছে। ১৯৯৪ সালের অস্ত্রবিরতির পর নাগোরনো কারাবাখ অঞ্চলে এটি ছিল সব চেয়ে বড় ধরণের সংঘাত।

প্রধানত: আর্মেনীয় জাতিগোষ্ঠি অধ্যুষিত অঞ্চলটি ১৯৯১ সালে সোভিয়েত ইউনিয়নের পতনের সময়ে আজারবাইজান থেকে স্বাধীনতা ঘোষণা করে। এর ফলে ১৯৯৪ সালে অস্ত্র বিরতি হবার আগে পর্যন্ত তিরিশ হাজার মানুষ মারা যায় এবং সেই স্বাধীনতাও আন্তর্জাতিক ভাবে স্বীকৃত নয়।

XS
SM
MD
LG