অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

দক্ষিণ এশিয়ার তিন দেশে করোনায় কোন মৃত্যু নেই


দক্ষিণ এশিয়ার তিনটি দেশ নেপাল, ভুটান ও মালদ্বীপে করোনায় কেউ মারা যায়নি। তবে দেশ তিনটি করোনা মুক্ত নয়। সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী মালদ্বীপে আক্রান্ত হয়েছেন ২৫০ জন, নেপালে ৫৮ জন এবং ভুটানে সাত জন। তিন দেশ মিলিয়ে আক্রান্তের সংখ্যা ৩১৫ জন। বাকি পাঁচ দেশের মধ্যে শ্রীলংকায় মারা গেছেন মাত্র সাত জন। আক্রান্ত হয়েছেন ৬২২ জন। ভারত রয়েছে শীর্ষে। দেশটিতে প্রাণঘাতী এই ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ৩১ হাজার ৩৩২ জন। মারা গেছেন ১ হাজার আট জন। এরপরে রয়েছে পাকিস্তান। মারা গেছেন ৩২৭ জন, আক্রান্ত হয়েছেন ১৪ হাজার ৮৮৫ জন। মৃত্যু ও আক্রান্তের তালিকায় তৃতীয় স্থানে রয়েছে বাংলাদেশ। দেশটিতে মারা গেছেন ১৬৩ জন। ৭ হাজার ১০৩ জন আক্রান্ত হয়েছেন। আফগানিস্তানে এ সময় আক্রান্ত হয়েছেন ১৮শো ২৮ জন, মারা গেছেন ৫৮ জন।

গত ২৪ ঘন্টায় বাংলাদেশে মারা গেছেন আট জন, আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪১ জন। পরিসংখ্যান থেকে দেখা যাচ্ছে বাংলাদেশে আক্রান্তের সংখ্যা প্রতিদিনই বাড়ছে। সম্প্রতি ফাঁস হওয়া একটি সরকারি নথি থেকে এটা স্পষ্ট ৩১শে মে পর্যন্ত আক্রান্তের সংখ্যা অনেক বাড়বে। আন্তঃমন্ত্রণালয়ের একটি বৈঠকে উচ্চ পদস্ত কর্মকর্তারা সার্বিক পরিস্থিতি পর্যালোচনা করেন। এই বৈঠকে স্বরাষ্ট্র, পররাষ্ট্র, স্বাস্থ্য, তথ্যসহ বেশ কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন। এছাড়া অন্যান্য দপ্তরের পদস্ত কর্মকর্তারা বৈঠকে তাদের মতামত তুলে ধরেন। আমাদের হাতে এই বৈঠকের একটি নথি এসেছে। বৈঠকে কর্মকর্তারা দুটি দৃশ্যকল্প নিয়ে পর্যালোচনা করেন। একটি হচ্ছে ৩১শে মে পর্যন্ত আটচল্লিশ থেকে পঞ্চাশ হাজার মানুষ এতে আক্রান্ত হবেন। মারা যাবেন আটশো থেকে এক হাজার।

ওদিকে করোনার ঝুঁকি নিয়ে ঢাকার পথে ছুটছেন হাজার হাজার পোশাক শ্রমিক। বলা হয়েছিল কারখানার আশপাশের শ্রমিকরাই কেবল কাজে ফিরতে পারবেন। ঢাকা-আরিচা রোডে বুধবারের চিত্র ছিল অনেকটা স্বাভাবিক সময়ের মত। গনপরিবহন ছাড়া অন্য সব যানবাহনে গাদাগাদি করে শ্রমিক এবং কর্মজীবী মানুষজন ঢাকামুখী হয়েছেন।

করোনা কেড়ে নিয়েছে একজন সিনিয়র সাংবাদিকের প্রাণ। মঙ্গলবার রাতে করোনার সঙ্গে লড়াই করে হেরে গেছেন দৈনিক সময়ের আলো পত্রিকার নগর সম্পাদক হুমায়ূন কবির। রাজধানীতে বুধবার একজন পুলিশ সদস্য করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। নারায়ণগঞ্জ করোনার হটস্পটে পরিণত হয়েছে। এই জেলায় এ পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৮৮২ জন, মারা গেছেন ৪২ জন। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারের ১০ জন কারারক্ষী করোনায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে রয়েছেন।

গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের কিট নিয়ে বিতর্কের মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক সংস্থা সেন্টার ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন(সিডিসি) এর সক্ষমতা পরীক্ষার আগ্রহ ব্যক্ত করেছে। ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী জানিয়েছেন, সিডিসি তাদের কাছে আটশো কিট চেয়েছে।

please wait

No media source currently available

0:00 0:02:45 0:00
সরাসরি লিংক


XS
SM
MD
LG