অ্যাকসেসিবিলিটি লিংক

একদিনের জন্য সুইডিশ রাষ্ট্রদূতের প্রতীকী দায়িত্ব পালন করলেন বাংলাদেশের মেয়ে রুনা


একদিনের জন্য সুইডিশ রাষ্ট্রদূতের প্রতীকী দায়িত্ব পালন করা বাংলাদেশি কন্যা রুনা- ফটো- সুইডিশ দূতাবাস

ঢাকায় একদিনের জন্য সুইডিশ রাষ্ট্রদূতের প্রতীকী দায়িত্ব পালন করলেন বাংলাদেশি কন্যা রুনা। ১১ই অক্টোবর আন্তর্জাতিক কন্যা শিশু দিবসের এই আয়োজন ছিল নানা চমকে ভরা। উচ্চ মাধ্যমিকের ছাত্রী রুনার সঙ্গে মিডিয়ার কোনো সাক্ষাৎ হয়নি। এ ধরণের কোনো আয়োজনও ছিল না। সুইডিশ দূতাবাসের অফিসিয়াল ফেসবুক পেজে রুনার দায়িত্ব পালনের বিষয়ে একটি বার্তা দেয়া হয়েছে।

রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব গ্রহণের পর রুনা নিজেই একটি টুইটবার্তায় বলেন, ‘হাই! আমি রুনা। আজকের রাষ্ট্রদূত। পদটি গ্রহণ করে আমি ক্ষমতায়িত এবং আত্মবিশ্বাসী বোধ করছি। আমিও নেতা হতে পারি। এই নেতৃত্বের মাধ্যমে আমি আমার মতো অন্য মেয়েদের উন্নত সুযোগ লাভের জন্য প্রভাবিত করতে পারি। বিশেষ করে ডিজিটাল লিটারেসিতে।’ উচ্ছ্বসিত রুনার এই টুইটবার্তা ইতোমধ্যে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ব্যাপক আলোড়ন তুলেছে।

ঢাকাস্থ সুইডিশ রাষ্ট্রদূত অ্যালেক্স বার্গ ফন লিন্ডে পাশে থেকে রুনাকে শিখিয়েছেন কীভাবে অফিসিয়াল কাজ শুরু করতে হয়। বলা যায় অনেকটা হাতে কলমে।

রাজধানীর ধলপুরে শিশু ও নারী অধিকার নিয়ে কাজ করেন রুনা। তিনি কমিউনিটি স্বেচ্ছাসেবক দলেরও সদস্য। কমিউনিটি শিশুদের শিক্ষা ও কিশোরী-যুব নারীদের অধিকার নিশ্চিতের পাশাপাশি বাল্য বিবাহ প্রতিরোধেও কাজ করেন রুনা। রাষ্ট্রদূত জানান, দিনের শুরুটা হয়েছে রুনার সঙ্গে বৈঠকের মধ্য দিয়ে। আজ আমার টুইটার ও ফেসবুক পেজের নিয়ন্ত্রণ ছিল তার হাতে।

রাষ্ট্রদূত বলেন, এই আন্তর্জাতিক কন্যা শিশু দিবসে আমরা মেয়েদের ক্ষমতা ও যোগ্যতাকে উদযাপন করছি। সেইসাথে সকল বাধা ভেঙে চ্যালেঞ্জ করছি সমাজের প্রচলিত চিরাচরিত প্রথাকে। দাবি জানাচ্ছি পরিবর্তনের। কিন্তু আমাদের বিদ্যমান সঙ্কটকেও চিহ্নিত করতে হবে। বাস্তবে ও অনলাইনে মানবাধিকার লঙ্ঘনের যে কোনো ঘটনার প্রথম শিকার হয় মেয়েরাই। বয়স ও জেন্ডারের কারণে তারা দ্বিগুণ বৈষম্যের শিকার হয়। একদিনের জন্য রাষ্ট্রদূতের এই প্রতীকী দায়িত্ব গ্রহণ মেয়েদের কণ্ঠ আজ ও আগামীতে সর্বত্র পৌঁছে দেয়ার অন্যতম উপায়।

আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সংস্থ্য প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ বিষয়টি নিশ্চিত করেছে তাদের অফিসিয়াল ফেসবুকে দেয়া এক বার্তার মাধ্যমে। রুনার রাষ্ট্রদূত হিসেবে দায়িত্ব পালনের খবর দিয়ে সংস্থাটি লিখেছে, মেয়েদের ভবিষ্যত নেতা হতে উৎসাহিত করার প্রচেষ্টার জন্য আমরা রাষ্ট্রদূতের সমর্থনের প্রশংসা করছি। আমরা মেয়েদের সমান হওয়ার এবং নিজেদেরকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাওয়ার আহবান জানাই।

২০১২ সনের ১১ই অক্টোবর প্রথম আন্তজার্তিক কন্যা শিশু দিবস পালন শুরু হয়। লিঙ্গ বৈষম্য দূর করা দিবসটির অন্যতম উদ্দেশ্য। প্ল্যান ইন্টারন্যাশনাল এই দিবসটির আয়োজক। এ বছর মাসব্যাপী ৭০টি টেকওভার অনুষ্ঠানের আয়োজনের কর্মসূচি হাতে নিয়েছে তারা।

ওদিকে সুইডিশ দূতাবাসের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই পদটিতে প্রতীকী দায়িত্ব পালন নিয়ে উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেন রুনা। বলেন, আমাদের কমিউিনিটিতে মেয়েরা বেশিরভাগ সময় বুঝতে পারেনা তাদের দক্ষতা ও সক্ষমতা বিকাশের মাধ্যমে কতোদূর যাওয়া সম্ভব। আসলে তারাও পারে নেতৃত্ব দিয়ে সমাজে পরিবর্তন আনতে।

XS
SM
MD
LG